Advertisement

অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভরতি প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন, কেমন আছেন তিনি?

01:16 PM Oct 15, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন আমেরিকার (America) প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন (Bill Clinton)। ঠিক কী হয়েছে প্রবীণ রাজনীতিকের, তা এখনও জানা যায়নি। তবে ৭৫ বছরের বিলের যে করোনা হয়নি তা জানিয়ে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এটুকু জানা গিয়েছে, তাঁর রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর অসুস্থতার কথা জানিয়েছেন ক্লিন্টনের মুখপাত্র।

Advertisement

অ্যাঞ্জেল উরেনা নামের ওই মুখপাত্র জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার এক হাসপাতালে ভরতি করা হয় ক্লিন্টনকে। মূলত নিয়মিত পর্যবেক্ষণে রাখার জন্যই তাঁকে ভরতি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে অ্যান্টিবায়োটিক ও তরল খাবার দেওয়া হচ্ছে তাঁকে। তিনি চিকিৎসায় ভালই সাড়া দিচ্ছেন। প্রথম দু’দিনেই তাঁর রক্তে শ্বেত রক্তকণিকার মাত্রা ধীরে ধীরে কমতে শুরু করেছে। সেই সঙ্গে অ্যান্টিবায়োটিকেও তিনি ভালই সাড়া দিচ্ছেন।

[আরও পড়ুন: কিমের কোরিয়ায় অনাহারের আশঙ্কা, রাষ্ট্রসংঘের রিপোর্টে প্রকাশ্যে উদ্বেগজনক তথ্য]

পরিস্থিতি যা, তাতে আশাবাদী চিকিৎসকরা। তাঁরা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন নিউ ইয়র্কে অবস্থিত ক্লিন্টনের ব্যক্তিগত মেডিক্যাল টিমের সঙ্গে। যাঁর মধ্যে রয়েছেন ক্লিন্টনের কার্ডিওলজিস্টও। ডাক্তাররা মনে করছেন, এভাবে সাড়া মিললে কিছুদিনের মধ্যে ক্লিন্টনকে ছেড়েও দিতে পারেন। তবে আপাতত তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে গুরুতর হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল ক্লিন্টনের। দ্রুত তাঁর বাইপাস সার্জারি করেন চিকিৎসকরা। সেই থেকেই তাঁর খাদ্যাভ্যাসে বড়সড় পরিবর্তন আসে। এর আগে চর্বিজাত খাবার খেতেই বেশি ভালবাসতেন তিনি। কিন্তু ডাক্তারদের পরামর্শে তারপর থেকে নিরামিষ খাবারই খাওয়া শুরু করেন ক্লিন্টন।

[আরও পড়ুন: মায়ানমারে তুঙ্গে গৃহযুদ্ধ, বিদ্রোহীদের হামলায় নিহত বার্মিজ সেনার ৩০ জওয়ান]

১৯৯৩ সালে প্রথমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট হন তিনি। ২০০১ সাল পর্যন্ত মার্কিন মুলুকের প্রশাসনের শীর্ষপদে ছিলেন ক্লিন্টন। আমেরিকার ৪২তম প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি। সুদর্শন চেহারা, অসাধারণ বাগ্মীতা ও ক্যারিশমার জন্য অসম্ভব জনপ্রিয় ছিলেন ক্লিন্টন। যদিও মনিকা নিউয়েনস্কি-সহ একাধিক মহিলা তাঁর যৌন হেনস্তার অভিযোগ আনায় ভাবমূর্তি অনেকটাই ক্ষুণ্ণ হয় তাঁর।

Advertisement
Next