Advertisement

বয়স তো সংখ্যামাত্র! ৯০ বছরের আইনজীবী সারলেন বিয়ে, কনের বয়স মোটে ৪০

06:55 PM Jan 18, 2022 |

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বয়সে কী আসে যায়! প্রেমে পড়লে মন মানে না। তখন বয়স-জাত-ধর্ম-বর্ণ সব ভুলে যায় মানুষ। চোখে ভাসে প্রিয়জনের সংঙ্গে সংসার বাঁধার স্বপ্ন। তারই হাতে গরম প্রমাণ মিলল বাংলাদেশে। নবতিপর এক আইনজীবী বিয়ে করলেন ৪০ বছরের মহিলাকে। যা নিয়ে বাংলাদেশজুড়ে জোর চর্চা।

Advertisement

৯০ বছরের বৃদ্ধ আইনজীবী মহম্মদ ইসমাইল। কুমিল্লা জেলা বারের পাঁচ বারের সভাপতি। ১৯৪৭ সালে ম্যাট্রিক পাস করেন। ১৯৪৯ সালে ইন্টারমিডিয়েট ও পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগে পড়াশোনা করেন। তিনি ফজলুল হকের ছাত্র ছিলেন। সোমবার সেই ইসমাইল তার চেয়ে ৫০ বছরের ছোট মিনু আরাকে বিয়ে করলেন। যার বয়স ৪০ বছর।

[আরও পড়ুন: মমতা ও অভিষেকের পদ বাদ রেখেই সাংগঠনিক নির্বাচন তৃণমূলের, দিন ঘোষণা করলেন পার্থ]

হালকা–পাতলা চেহারার ইসমাইলের মাথার পুরো চুল সাদা। ফর্সা গায়ের রং। সব সময় কোট-টাই পরে চলেন। সোমবার বিকেলে ইসমাইল ছাদনাতলায় পিঁড়ি পেতে বসেন। বিয়েতে তাঁর ৫ ছেলে ও ১ মেয়ে এবং নাতি-নাতনিরা উপস্থিত ছিলেন। কুমিল্লা বারের প্রবীণ আইনজীবীর বিয়ের খবর ছড়িয়ে পড়তেই নগরজুড়ে ব্যাপক আলোচনা ও কৌতূহলের সৃষ্টি হয়। এই বিয়ের বিষয়ে অ্যাডভোকেট মো. ইসমাইল কথা বলতে না চাওয়ায় সাংবাদিকরা তাঁর কোনও মতামত জানতে পারেননি। জানা গিয়েছে, সাত বছর আগে তাঁর স্ত্রী প্রয়াত হয়েছেন। সেই একাকীত্ব কাটাতেই জীবনসঙ্গীকে বেছে নিলেন বলে খবর।

Advertising
Advertising

জানা গিয়েছে, নতুন কনে মিনুর বাড়ি দেবিদ্বার উপজেলায়। তবে তিনি কুমিল্লা নগরীর দেশওয়ালীপট্টি এলাকায় ভাড়া থাকতেন। তাঁর পরিবার এই বিয়েতে উপস্থিত ছিল বলে জানা গিয়েছে। প্রবীণ এই আইনজীবীর বিয়ের খবর পেয়ে তাঁর সহকর্মী ও অনুজরা সন্ধে থেকেই মিষ্টি নিয়ে বাড়িতে ভিড় জমান। আইনজীবীদের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দও ফুল ও মিষ্টি নিয়ে নবদম্পতিকে অভিনন্দন জানিয়েছে।

[আরও পড়ুন: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্যের জের, আইনজীবীদের বিক্ষোভের মুখে কল্যাণ]

Advertisement
Next