প্রবীণদের জন্য ‘বেলাশুরু’র স্পেশ্যাল স্ক্রিনিং, একসঙ্গে বসে ছবি দেখলেন শিবপ্রসাদও

10:25 PM May 29, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জীবন সায়াহ্নে এসে নতুন রূপ পায় ভালবাসা। এই ভালবাসার কাহিনিই ফুটে উঠেছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত অভিনীত ‘বেলাশুরু’ (Belashuru) ছবিতে। বাংলার পাশাপাশি সারা দেশে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। এখনও একাধিক শো হাউসফুল। বিশ্বনাথ ও আরতির কাহিনি দেখলেন কলকাতার পুলিশের ‘প্রণাম’ প্রকল্পের প্রবীণ সদস্যরা।  

Advertisement

Advertising
Advertising

শনিবার এই বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের আয়োজন করা হয় আলিপুর বডিগার্ড লাইন অডিটরিয়ামে। যেখানে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক জুটি নন্দিতা রায় এবং শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। ছিলেন অভিনেত্রী মনামী ঘোষ। বিশেষ এই স্ক্রিনিংয়ে যোগ দেন পুলিশ কমিশনার তথা নগরপাল  বিনীত কুমার গোয়েল। ছবি প্রদর্শনীর আগে একটি ছোট্ট অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কলাকুশলীদের সম্বর্ধনাও দেওয়া হয়।

 

[আরও পড়ুন: ‘গাঁটছড়া’ সিরিয়ালের সেটে একের পর এক ফোন চুরি, শ্রীমার বিরুদ্ধে অভিযোগ অনিন্দ্যর!]

ষাটের বেশি যাঁদের বয়স, সেই সমস্ত প্রবীণ নাগরিকদের আইনি ও চিকিৎসা সাহায্য দেওয়ার জন্য কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) পক্ষ থেকে প্রণাম প্রকল্প শুরু করা হয়। ২৪ ঘণ্টার একটি হেল্পলাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে। বাড়ির ঠিকানা,ফোন নম্বর এবং রক্তের গ্রুপ দিয়ে ফর্ম পূরণ করলেই পাওয়া যাবে নানা সুবিধা। শনিবার ‘প্রণাম’ প্রকল্পের প্রায় ২৬৬ জন প্রবীণ সদস্য ‘বেলাশুরু’ দেখেন। ছবি দেখে মুগ্ধ প্রবীণ দর্শকরা।  প্রত্যেককে কৃতজ্ঞতা জানান শিবপ্রসাদ-নন্দিতা জুটি। 

২০১৫ সালে মুক্তি পেয়েছিল ‘বেলাশেষে’। বড়পর্দায় বিশ্বনাথ ও আরতির কাহিনি দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন দর্শকরা। তার সাত বছর পর সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ‘বেলাশুরু’। ভারতবর্ষের এমন এক সিনেমার যাঁর নায়ক ও নায়িকা আর বেঁচে নেই। কিন্তু শিল্পী তো শিল্পের মাধ্যমেই অমর থাকে। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (Soumitra Chatterjee) এবং স্বাতীলেখা সেনগুপ্তর (Swatilekha Sengupta) ক্ষেত্রেও এমনটাই হয়েছে। বাংলা সিনেমার কিংবদন্তিকে একসঙ্গে বড়পর্দায় দেখতে সিনেমা হলে ভিড় করেছেন দর্শকরা। ইতিমধ্যেই দু’কোটির বেশি টাকা আয় করে ফেলেছে ছবিটি।

[আরও পড়ুন: ‘গাঁটছড়া’ সিরিয়ালের সেটে একের পর এক ফোন চুরি, শ্রীমার বিরুদ্ধে অভিযোগ অনিন্দ্যর!]  

Advertisement
Next