পুলওয়ামার পর অনন্তনাগ, সেনার গুলিতে ফের নিকেশ জঙ্গি

09:20 AM Jun 08, 2019 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের উত্তপ্ত উপত্যকা৷ মাত্র চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই আবার জঙ্গিনিধনে সাফল্য মিলল ভারতীয় সেনার৷ পুলওয়ামার পর এবার অনন্তনাগ৷ সেনার গুলিতে নিকেশ এক জঙ্গি৷ খতম হওয়া ওই জঙ্গি কোন সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিল, তা এখনও জানা যায়নি৷ তার কাছে প্রচুর পরিমাণ অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে৷ সেগুলি বাজেয়াপ্ত করেছে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ৷

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[ আরও পড়ুন: ‘বাবার চাকরি ফিরিয়ে দিন’, মোদিকে ৩৭টি চিঠি লিখে অনুরোধ কিশোরের]

সেনা সূত্রে খবর, অনন্তনাগে তিন-চারজন জঙ্গি ঘাপটি মেরে লুকিয়ে রয়েছে বলেই খবর পান জওয়ানরা৷ তাদের খোঁজে জারি হয় তল্লাশি অভিযান৷ দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগে হানা দেয় যৌথ নিরাপত্তা বাহিনী৷ ধরপাকড়ের হাত থেকে রেহাই পেতে সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে থাকে জঙ্গিরা৷ পালটা জবাব দেয় ভারতীয় সেনা৷ দুপক্ষের মধ্যে প্রায় রাতভর গুলির লড়াই চলে৷ শনিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে এক জঙ্গির দেহ উদ্ধার করা হয়৷ তার কাছে একে ৪৭ রাইফেল-সহ অন্যান্য অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়৷ এখনও ওই এলাকায় দুজন জঙ্গি লুকিয়ে রয়েছে বলেই সেনা সূত্রে খবর৷ তাদের খোঁজে চলছে তল্লাশি৷ নিরাপত্তার স্বার্থে ওই এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: এক বছরে নিকেশ ১০৩ জন জঙ্গি, উপত্যকায় কমছে সন্ত্রাস]

বৃহস্পতিবার রাত থেকেই থমথমে উপত্যকা৷ ইদের ছুটিতে বাড়ি ফিরেছিলেন ৩৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসে কর্মরত সেনা জওয়ান মানজুর আহমেদ বেজ৷ দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগে বাড়ি তাঁর৷ দরজা ধাক্কা দিয়ে ঘরের ভিতরে ঢোকে জঙ্গিরা৷ নির্বিচারে গুলি চালায় তারা৷ রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ওই সেনা জওয়ান৷ তাঁকে তড়িঘড়ি স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও শেষরক্ষা হয়নি৷ শহিদ হন ওই সেনা জওয়ান৷ এখনও পর্যন্ত কোনও জঙ্গি সংগঠন এই ঘটনায় দায়স্বীকার করেনি৷ এরপর থেকেই অনন্তনাগের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে৷ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মাঝেই জঙ্গি খতমের খবর কিছুটা হলেও দুশ্চিন্তা মুক্ত সেনা আধিকারিকরা৷

Advertising
Advertising

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

The post পুলওয়ামার পর অনন্তনাগ, সেনার গুলিতে ফের নিকেশ জঙ্গি appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next