Sheikh Hasina in India: তিস্তার জল অধরাই, তবু হাল ছাড়তে নারাজ হাসিনা, মোদির সঙ্গে বৈঠকে একাধিক চুক্তি স্বাক্ষর

05:10 PM Sep 06, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিস্তার (Teesta) জল আপাতত অধরাই রইল। মঙ্গলবার দিল্লিতে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (Bangladehs PM Sheikh Hasina) বৈঠকে তিস্তার জলবণ্টন নিয়ে কোনও আশ্বাস মেলেনি। পরিবর্তে অসমের কুশিয়ারা নদীর জল নিয়ে পাকাপাকি চুক্তি হয়েছে। ১৫৩ কিউসেক জল নেবে বাংলাদেশ। এছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি, মহাকাশ ক্ষেত্রে দুই দেশ একে অপরের হাত ধরে চলবে। এদিন হায়দরাবাদ হাউসে দুই রাষ্ট্রপ্রধানের বৈঠকের পর মোট ৭ টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। রয়েছে রেল, সড়ক, বিদ্যুৎ-সহ আরও বেশ কয়েকটি চুক্তিও। বাংলাদেশকে আর্থিকভাবে এগিয়ে যেতে সাহায্য়ের হাত বাড়িয়ে দিল ভারত (India)। 

Advertisement

Advertising
Advertising

 

মঙ্গলবার হায়দরাবাদ হাউসে দু’জনের বৈঠকের পর যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন মোদি-হাসিনা। তিস্তা এবারের মতো অধরা থাকলেও হাসিনা আশাপ্রকাশ করে বলেন, ”আগেও দু’দেশ পরস্পরের পাশে থেকে একাধিক সমস্যার সমাধান করেছে। আশা করছি,  এবার তিস্তার মতো সমস্যা-সহ একাধিক বিষয় জট কাটবে বন্ধুত্বের জোরেই।”

শেখ হাসিনার (PM Sheikh Hasina) আরও বক্তব্য, ভারত-বাংলাদেশের (India-Bangladesh) দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অন্যান্য় দেশের কাছে রোল মডেল। সেই সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে তাঁর এই সফরের পর। প্রতিবেশী দেশের প্রতি এতটা বন্ধুত্বপূর্ণ মনোভাবের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ((Narendra Modi) ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এই বৈঠক যথেষ্ট ফলপ্রসূ হয়েছে।  

[আরও পড়ুন: ভোট পরবর্তী সময়ে কলকাতায় বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনায় ফের CBI দপ্তরে পরেশ পাল]

দু’দেশের মধ্যে বন্যা নিয়ন্ত্রণ নিয়েও আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি জানান, বন্যার সময়ে জলস্তর নিয়ন্ত্রণের জন্য তথ্য আদানপ্রদানে বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ বণ্টন ব্যবস্থা, নিউক্লিয়ার শক্তি নিয়েও আলোচনা হয়েছে দু’ জনের মধ্যে। 

এবছর স্বাধীনতার ৫০ বছর পালন করেছে  বাংলাদেশ। আর ভারত ৭৫ বছর।  ভারতকে ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ উপলক্ষে বিশেষ শুভেচ্ছাবার্তা দিয়েছেন শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর ভাষণের উপর একটি বই তিনি তুলে দেন মোদির হাতে। 

[আরও পড়ুন: ‘অধিকারের দোহাই দিয়ে স্কুলে কি মিনি স্কার্ট পরা যায়?’ হিজাব মামলায় প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টের]

Advertisement
Next