Advertisement

ব্রহ্মপুত্র নদে বাঁধ নির্মাণ নিয়ে ‘আশ্বস্ত’করেছে চিন, লোকসভায় জানাল কেন্দ্র

01:06 PM Feb 04, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখ (Ladakh) সীমান্তে মুখোমুখি ভারত ও চিনের সেনাবাহিনী। আগ্রাসন চালালে ‘ড্রাগনে’র থাবা গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে বলে সাফ জানিয়েছে নয়াদিল্লি। এহেন পরিস্থিতিতে ব্রহ্মপুত্র নদে চিনের বাঁধ তৈরি নিয়ে শুরু হয়েছে চাপানউতোর। এই মর্মে বুধবার লোকসভায় বিবৃতি দেন বিদেশমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ভি মুরলীধরন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘অযোধ্যায় মসজিদের জন্য সরকারের দেওয়া জমি আমাদের’, দাবি দুই মহিলার]

বছর দুয়েক আগেই তিব্বতে ব্রহ্মপুত্রের (Brahmaputra) বুকে ‘মেগা ড্যাম’ তৈরি করার কাজ শুরু করেছে চিন। প্রকৃতিকে হাতিয়ার করে ভারতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে কমিউনিস্ট দেশটি। নয়াদিল্লির আশঙ্কা, ওই বাঁধ সম্পূর্ণ হলে অসম-সহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে জলের অভাব দেখা দেবে। যার ফলে বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে কৃষিকাজ। তা ছাড়া, আচমকা বাঁধ থেকে জল ছাড়লে বন্যার আশঙ্কাও থাকছে। এই মর্মে সংসদে মুরলীধরন বলেন, “দেশের স্বার্থের কথা মাথায় রেখে ব্রহ্মপুত্র-সহ চিন থেকে ভারতে আসা নদীগুলি নিয়ে বেজিংয়ের সঙ্গে কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চলছে। একাধিকবার তারা আশ্বস্ত করেছে যে ওই বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প কোনওভাবেই ভারতের ক্ষতি করবে না। নদীর গতিপথ বদলানোর কোনও পরিকল্পনা তাদের নেই। তবুও ব্রহ্মপুত্র নদ সংক্রান্ত চিনা কার্যকলাপের উপর কড়া নজর রাখা হচ্ছে।”

উল্লেখ্য, চিন (China) অধিকৃত তিব্বত অঞ্চলের উৎসস্থল থেকে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করেছে ইয়ারলাং জ্যাংবো নদী। অরুণাচলে পৌঁছে এর নাম হয়েছে সিয়াং। আর অসমে প্রবেশ করার পরে এই সিয়াংই পরিচিত হয় ব্রহ্মপুত্র নামে এবং এর পর ফের সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশ করে তা। জানা গিয়েছে, এই অরুণাচল সীমান্তের কাছাকাছি তিব্বতের মেডগ কাউন্টিতে ইয়ারলাং জ্যাংবো নদীর উপর বাঁধ তৈরির পরিকল্পনা করেছে বেজিং। এর আগেও ব্রহ্মপুত্রের উপরে একাধিক ছোট-বড় বাঁধ নির্মাণ করেছে বেজিং। কিন্তু নয়া এই বাঁধ সেগুলোর তুলনায় অনেকটাই বড় হতে চলেছে বলে খবর। জানা গিয়েছে, নতুন এই বাঁধ নির্মাণ করা হচ্ছে সেদেশের জাতীয় নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই।

[আরও পড়ুন: প্রোপাগান্ডা করে ভারতের ঐক্য ভাঙা যাবে না, বিদেশি তারকাদের তোপ অমিত শাহর]

Advertisement
Next