Advertisement

ওমিক্রন রুখতে শীঘ্রই আসছে ভারতে তৈরি ভ্যাকসিন, দাবি প্রশাসনিক সূত্রে

03:03 PM Jan 17, 2022 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ওমিক্রনের (Omicron) দাপটে বিশ্বজুড়ে নাভিশ্বাস উঠেছে। ভারতেও আছড়ে পড়েছে কোভিডের তৃতীয় ঢেউ। এই অবস্থায় স্বস্তির খবর, একটি আন্তর্জাতিক ফার্মা সংস্থার ভারতের কার্যালয় ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের জন্য ভ্যাকসিন (Corona Vaccine) তৈরি করে ফেলেছে। আগামী কিছুদিনের মধ্যে ভ্যাকসিনটির হিউম্যান ট্রায়াল বা মানব শরীরে পরীক্ষা শুরু হয়ে যাবে বলেও দাবি করা হয়েছে প্রশাসনিক সূত্রে।

Advertisement

সূত্রের খবর, জিনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস (Gennova Biopharmaceuticals) নামের সংস্থাটি ইতিমধ্যে ভারত সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ভ্যাকসিনটির দ্বিতীয় পর্যায়ের সাফল্যের তথ্য জমা দিয়েছে। এই মুহূর্তে তৃতীয়ের পর্যায়ের ট্রায়াল নিয়ে ব্যস্ত সংস্থার বিজ্ঞানী ও গবেষকরা।

[আরও পড়ুন: দেশে করোনা সংক্রমণ সামান্য নিম্নমুখী, উদ্বেগ বাড়াচ্ছে মৃত্যুর উচ্চ হার]

প্রশাসনিক সূত্রের দাবি, “পুনের (Pune) জিনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস তাদের এমআরএনএ (mRNA) কোভিড ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল রিপোর্ট কেন্দ্রের কাছে জমা দিয়েছে। ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনেরাল অফ ইন্ডিয়ার (DCGI) বিশেষজ্ঞ কমিটি কিছুদিনের মধ্যেই নতুন ভ্যাকসিনের তথ্য যাচাই করে তাদের মতামত জানাবে।” ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের জন্য বিশেষ ভাবে তৈরি এমআরএনএ ভ্যাকসিনটির মানব শরীরের উপর নিরাপদ পরীক্ষা শীঘ্রই শুরু হতে চলেছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

Advertising
Advertising

এদিকে অন্য একটি সংবাদ সংস্থার দাবি, আগামী এক থেকে দুই মাসের মধ্যে জিনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস তাদের ভ্যাকসিনের কাজ শেষ করবে। আরও জানা গিয়েছে, যে ভারতে বুস্টার ডোজ হিসেবে ব্যবহার করা হতে পারে এমআরএনএ। তবে, তার আগে দেশজুড়ে একটি ফাইনাল ট্রায়াল হবে।

[আরও পড়ুন: ওমিক্রনই শেষ নয়, ভোল বদলে আসতে পারে আরও ভয়ংকর ভ্যারিয়েন্ট, আশঙ্কা বিজ্ঞানীদের]

আন্তর্জাতিক ওষুধ নির্মাতা সংস্থা এমকিউর ফার্মাসিউটিক্যালস, বিশ্বের ৭০টি দেশে যাদের কেন্দ্র রয়েছে। এই সংস্থারই ভারতের কার্যালয়টির নাম জিনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস। যারা ওমিক্রন রুখতে ভ্যাকসিন তৈরি করে ফেলেছে বলে দাবি করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, আরেক কোভিড ভ্যাকসিন নির্মাতা ফাইজারও (Pfizer) জানিয়েছে, ওমিক্রনকে ধ্বংস করতে কোভিডের প্রতিষেধক এমআরএনএ ভ্যাকসিন তৈরি করে ফেলেছে তারাও। সংস্থার দাবি, আগামী মার্চের মধ্যে তাদের কাজ সম্পূর্ণ হবে।

Advertisement
Next