যোগীরাজ্যে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল মসজিদ, অবৈধ নির্মাণ বলে দাবি প্রশাসনের

01:53 PM May 19, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যোগীরাজ্যে ভাঙা পড়ল মসজিদ (Mosque Demolition)। অবৈধভাবে মুসলিমদের উপাসনাস্থল ভাঙা হয়েছে বলে সরব হয়েছে উত্তরপ্রদেশের (Uttara Pradesh) সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ড। তাঁদের পাশে দাঁড়িয়ে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন অল ইন্ডিয়া মুসলিম ল’বোর্ডও। সোমবার রাতে উত্তরপ্রদেশের বারাবাঁকি জেলার একটি মসজিদ ভাঙে। যদিও স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, মসজিদটি অবৈধভাবে নির্মাণ করা হয়েছিল। উপযুক্ত নথিও দেখাতে পারেনি মসজিদ কর্তৃপক্ষ। তাই সেটি ভেঙে ফেলা হয়েছে।

Advertisement

রাম সনেহি ঘাটের লোকালয়ে গরিব নমাজ মসজিদ ছিল। যদিও প্রশাসনের দাবি, ওই নির্মাণটি বেআইনি। মসজিদটি নিয়ে উত্তরপ্রদেশের আদালতে দীর্ঘদিন ধরে মামলাও চলছিল। গত মার্চ মাসে এ নিয়ে মসজিদ কর্তৃপক্ষকে নোটিসও দেয় স্থানীয় প্রশাসন। কিন্তু মসজিদ কর্তৃপক্ষ তার জবাব না দিয়ে পালিয়ে গিয়েছে বলে খবর। এদিকে ১৭ মে ওই নির্মাণ ভেঙে ফেলার অনুমতি পায় প্রশাসন। এর পরই ভেঙে ফেলা হয় মসজিদ।

[আরও পড়ুন: মর্মান্তিক! মধ্যপ্রদেশের হাসপাতালে সদ্যোজাতর গোড়ালি খুবলে খেল ইঁদুর]

এ প্রসঙ্গে অল ইন্ডিয়া মুসলিম ল বোর্ডের কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক মৌলানা খালিদ সইফুল জানিয়েছেন, “কোনওরকম আইনি প্রক্রিয়া ছাড়াই পুলিশের উপস্থিতিতে গরিব নমাজ মসজিদ গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।” তাঁদের দাবি, “মসজিদটা নিয়ে কোনও সমস্যাই ছিল না। বরং মসজিদটি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডে নথিভুক্ত রয়েছে। রাম সনেহি ঘাটের সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট মসজিদ কর্তৃপক্ষের কাছে নথি দেখতে চেয়েছিল মার্চ মাসে। যার পালটা এলাহাবাদ হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল কর্তৃপক্ষ।” মসজিদ ভেঙে ফেলার বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি করেছেন তাঁরা। তাঁদের কথায়, প্রশাসনের উচিৎ মসজিদ তৈরি করে সাধারণ মানুষের হাতে তুলে দেওয়া। যদিও বেআইনিভাবে মসজিদ ভাঙার অভিযোগ অস্বীকার করেছে যোগী প্রশাসন। তাঁদের দাবি, আদালতের নির্দেশেই এই কাজ করা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ২৪ ঘণ্টায় দেশে রেকর্ড মৃত্যু, একদিনে করোনা আক্রান্ত ২ লক্ষ ৬৭ হাজার]

Advertisement
Next