Advertisement

Tripura: সরগরম ত্রিপুরা, অভিষেকের সফরের পরদিনই আগরতলায় মোদি-নাড্ডা

11:33 AM Dec 26, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শীতের মরশুমে পারদ চড়ছে ত্রিপুরার (Tripura)। নতুন বছরের গোড়াতেই তৃণমূল-বিজেপির হেভিওয়েট নেতাদের আগরতলা সফর। আর এই সফর ঘিরে বাড়ছে সে রাজ্যের রাজনৈতিক উত্তাপ।

Advertisement

বছরের শুরুতেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যাচ্ছেন আগরতলা (Agartala) সফরে। তৃণমূলের রাজভবন অভিযানের দিনও তিনি আগরতলায় থাকবেন বলে খবর। আর ঘাসফুল শিবিরের হেভিওয়েট নেতার সফরের পরদিনই রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সঙ্গে থাকবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা (JP Nadda)। বছরের গোড়াতেই একের পর এক হাই প্রোফাইল নেতার আগরতলার সফর ঘিরে বাড়ছে রাজনৈতিক তৎপরতা।

[আরও পড়ুন: যৌন নির্যাতনে অন্তঃসত্ত্বা নাবালিকা, গর্ভপাতের অনুমতি চেয়ে হাই কোর্টে বাবা-মা]

সূচি বলছে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (TMC leader Abhishek Banerjee) আগরতলা সফরে যাচ্ছেন ২ জানুয়ারি। দেখা করবেন আক্রান্ত তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে। ফিরবেন পরের দিন অর্থাৎ ৩ জানুয়ারি। পরদিন অর্থাৎ ৪ জানুয়ারি-ই আগরতলা সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রধানমন্ত্রীর সাথে থাকবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাও (JP Nadda)। এই সফর প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেব জানিয়েছেন, “৪ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী একদিনের সফরে আগরতলায় আসবেন। আগরতলার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্বোধন করবেন। একই সঙ্গে আসতে পারেন বিজেপির সভাপতি জেপি নাড্ডাও।” এদিকে তৃণমুল কংগ্রেসের আহ্বায়ক সুবল ভৌমিক জানিয়েছেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আসবেন ২ জানুয়ারি। ৩ জানুয়ারি তাঁর কলকাতায় ফিরে যাওয়ার কথা রয়েছে। অভিষেকের ফিরে যাওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর ত্রিপুরা সফরকে ঘিরে ব্যাপক তৎপরতা শুরু হয়েছে।

Advertising
Advertising

প্রসঙ্গত, আর দেড় বছরের মধ্যেই ত্রিপুরা বিধানসভার নির্বাচন। সদ্য সমাপ্ত পুর নির্বাচনে ২০ শতাংশ ভোট পেয়েছে তৃণমূল। সুবল ভৌমিক জানিয়েছেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে এসে আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীদের সাথে কথা বলবেন। বৈঠক করবেন দলের শীর্ষ নেতাদের সাথে। নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে সব রাজনৈতিক দল।

এদিকে বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার জানিয়েছেন, “আর দেড় বছর রয়েছে এই সরকারের মেয়াদ। তার দাবি এরপরই ক্ষমতায় আসছে সিপিএম দল।” ত্রিপুরা বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগও আনেন মানিকবাবু। এদিকে বিজেপির বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের নীরবতায় রহস্য ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: আঠেরোর অপেক্ষা নয়, বয়ঃসন্ধি পেরোলেই বিয়ে করতে পারে মুসলিম মেয়েরা! বলছে আদালত]

Advertisement
Next