গুজরাটে পুনর্নির্মাণ মামুদের ভেঙে দেওয়া মন্দিরের, সেখানেই ধর্মীয় ধ্বজা ওড়ালেন প্রধানমন্ত্রী

05:48 PM Jun 18, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুজরাটের (Gujarat) নবনির্মিত মহাকালী মন্দিরের (Mahakali Mandir) উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। প্রায় ৫০০ বছর আগে সুলতান মাহমুদ বেগদা ধ্বংস করে দিয়েছিলেন এই মন্দিরটি। তার উপরেই নির্মিত হয়েছিল দরগা। এতগুলি শতক পেরিয়ে আসার পরে ফের সেই মন্দির নির্মিত হয়েছে। আর এবার সেই চূড়াতে ধর্মীয় পতাকা ওড়ালেন প্রধানমন্ত্রী।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

রাজ্যের পাভাগড় পর্বতের উপরে অবস্থিত একাদশ শতকের এই মন্দির ভেঙে এর উপরে তৈরি হয়েছিল দরগা। সদ্য সেই দরগার পরিবর্তে ফের তৈরি করা হয়েছে মন্দির। শনিবার তারই উদ্বোধন করলেন মোদি। সেই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দিলেন, ”মন্দিরের চূড়ার এই পতাকা কেবল আধ্যাত্মিকতার প্রতীক মাত্র নয়। বরং তা বুঝিয়ে দেয় শতকের পর শতক পেরিয়ে এসেও আমাদের বিশ্বাসে কোনও ফাটল ধরেনি।” পাশাপাশি মোদি মনে করিয়ে দেন, ভারতের বিশ্বাস ও আধ্যাত্মিক গৌরব পুনঃস্থাপিত হয়েছে। তিনি বলেন, ”আপনারা দেখেছেন অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মিত হয়েছে অযোধ্যায়। কাশী বিশ্বনাথ মন্দির চত্বর নতুন করে তৈরি করা হয়েছে। একই ভাবে কেদারনাথ মন্দিরও পুনর্নির্মিত হয়েছে।”

[আরও পড়ুন: ‘মমতা দিদি’কে কৃতজ্ঞতা জানিয়েও রাষ্ট্রপতি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ফারুক আবদুল্লা]

গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার দু’দিনের জন্য গুজরাটে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী। শনিবার সাতসকালে গান্ধীনগরে মা হীরাবেনের (Heeraben) বাড়িতে পৌঁছে যান মোদি। এই দিনেই ১০০ তম জন্মদিন তাঁর মা হীরাবেনের। শততম জন্মদিনে মায়ের সঙ্গে কাটানো বিশেষ মুহূর্তগুলি তিনি তুলে ধরেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা যাচ্ছে, হীরাবেনের পা ধুইয়ে দিচ্ছেন তিনি। সেই সঙ্গে নিচ্ছেন মায়ের আশীর্বাদ। ছবির সঙ্গে ক্যাপশনে প্রধানমন্ত্রী লিখেছেন, “মা, আমার এ বিশ্বে হাজারো আবেগ জড়িয়ে। আজ, ১৮ জুন আমার মা শততম বর্ষে পা দিলেন। এমন বিশেষ দিনে তাঁর প্রতি ভালবাসা, কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা জানাতে আমি কলম ধরেছি।”

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

উল্লেখ্য, এদিন হীরাবেনের জন্মদিন উপলক্ষে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে আহমেদাবাদের জগন্নাথ মন্দিরে সাধারণ মানুষকে খাওয়ানোর বন্দোবস্তও করা হয়েছে। মহাকালী মন্দির উদ্বোধনের পরে ভদোদরার সম্মেলনেও যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: বাংলার গঙ্গাহৃদি জনপদের শক্তি দেখে থমকে গিয়েছিলেন আলেকজান্ডারও! জানেন এর ইতিহাস?]

Advertisement
Next