বদ্রিনাথ মন্দিরে ইদের নমাজ পড়ার অভিযোগ VHP ও বজরং দলের, গুজব বলে জানাল পুলিশ

09:08 AM Jul 23, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বদ্রিনাথ মন্দিরে (Badrinath Dham) ইদের (Eid-ul-Adha) নমাজ (Namaz) পড়া হয়েছে। এমনই দাবি করল বিশ্ব হিন্দু পরিষদ (VHP) ও বজরং দল (Bajrang Dal)। একটি ভিডিও-ও তারা তুলে ধরেছে প্রমাণ হিসেবে। ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী সৎপাল মহারাজের কাছে তারা তদন্তের দাবিও জানিয়েছে। কিন্তু চামো‌লির পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট যশবন্ত সিং চৌহান এই অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে জানিয়েছেন, এমন কোনও ঘটনাই ঘটেনি।

Advertisement

গত বুধবার থেকেই ভাইরাল হতে শুরু করে একটি ভিডিও। দাবি করা হয়, মুসলিম শ্রমিকরা বদ্রিনাথ মন্দিরেই নমাজ পড়েছেন। এবং কোভিড বিধিও মানেননি। এই ভিডিওই তার প্রমাণ। যদিও ভিডিওটি দেখে তা কবেকার বোঝা যায়নি বলেই জানা গিয়েছে। এরপরই ওই জেলায় কয়েকদিনের সফরে আসেন সৎপাল মহারাজ। তখনই তাঁর সঙ্গে দেখা করেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও বজরং দলের সদস্যরা। অভিযোগ জানানো হয়, ইদ-উল-আদার নমাজ আদায় করতে বদ্রিনাথ মন্দির চত্বরকে বেছে নিয়েছিলেন কিছু মুসলিম শ্রমিক। তদন্তে নেমে পুলিশ অবশ্য তেমন কোনও প্রমাণ পায়নি।

আরও পড়ুন: তাপমাত্রা ছাড়িয়েছে ৫০ ডিগ্রি, ‘নকল’ বৃষ্টিতে ভিজল দুবাই! ভিডিও ভাইরাল]

অবশেষে চামোলির পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট জানান, ‘‘ওই মন্দিরের কাছেই একটি পার্কিং লট তৈরির কাজ করছি‌লেন মুসলিম শ্রমিকরা। কিন্তু তাঁরা ইদের নমাজ পড়েছেন তাঁদের নিজেদের ঘরেই। এবং লাউড স্পিকার ব্যবহার না করেই।’’ তাঁরা যে মাস্ক পরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অর্থাৎ যাবতীয় কোভিড বিধি মেনেই নমাজ পড়েছিলেন, সেকথাও জানিয়েছেন সুপারিটেন্ডেন্ট।

Advertising
Advertising

জানা গিয়েছে, ওই পার্কিং লট মন্দির থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সেখানেই নির্মাণকাজ করছিলেন জনা পনেরো শ্রমিক। তাঁদের বিরুদ্ধেই অভিযোগ। কিন্তু তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছে, মন্দির চত্বরে নমাজ পড়ার অভিযোগ একেবারেই সত্যি নয়। স্থানীয় মানুষদের এই ধরনের খবরে কান না দেওয়ার আরজি জানিয়েছেন পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট।

[আরও পড়ুন: Pegasus বিতর্কে ধুন্ধুমার সংসদ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বক্তৃতার কাগজ ছিঁড়লেন তৃণমূল সাংসদ]

Advertisement
Next