Advertisement

‘ওই ২০০ জন এমনিও মরত’, বিক্ষোভকারী কৃষকদের মৃত্যু নিয়ে রসিকতা হরিয়ানার মন্ত্রীর

01:47 PM Feb 14, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিরোধীরা তাঁদের শহিদ আখ্যা দিয়েছেন। সরকার এখনও সেভাবে গুরুত্বই দেয়নি। দিল্লি সীমান্তে বিক্ষোভরত কৃষকদের মৃত্যু নিয়ে কেন্দ্র এবং হরিয়ানা, দুই সরকারই চূড়ান্ত উদাসীনতা দেখিয়েছে। শনিবার হরিয়ানার কৃষিমন্ত্রী জেপি দালাল (JP Dalal) আরও এক কাঠি উপরে চলে গেলেন। বিক্ষোভে ২০০ কৃষকের ‘শহিদ’ হওয়া নিয়ে রীতিমতো রসিকতা করে বসলেন তিনি। হাসতে হাসতে বলে দিলেন, দিল্লিতে বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে যে ক’জন মারা গিয়েছেন, তাঁরা নাকি এমনিতেও মারাই যেতেন।

Advertisement

বিরোধীদের দাবি, দিল্লি সীমান্তে গত প্রায় ৩ মাস ধরে বিক্ষোভরত কয়েক লক্ষ কৃষকদের মধ্যে ২০০ জন ‘শহিদ’ হয়েছেন। দিন দুই আগে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী সংসদে বক্তব্য রাখার সময় দিল্লির কৃষক বিক্ষোভে (Farmers Protest) মৃত ‘২০০ জন’ কৃষককে শহিদ আখ্যা দিয়ে তাঁদের স্মরণে দু’মিনিটের নীরবতাও পালন করছেন। রাহুলের পাশাপাশি কংগ্রেসের অন্য সাংসদরাও উঠে দাঁড়িয়ে মিনিট দুয়েকের নীরবতা পালন করেন। তাৎপর্যপূর্ণভাবে রাহুলের সঙ্গে যোগ দেন ডিএমকে (DMK) এবং তৃণমূলের সাংসদরাও (TMC)। কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা যখন কৃষকদের শহিদ আখ্যা দিচ্ছেন, তখন বিজেপির এই মন্ত্রী ওই ২০০ কৃষকের মৃত্যুর মধ্যে অস্বাভাবিক কিছু দেখছেন না। তাঁর বক্তব্য,”যে ২০০ জনের মৃত্যুর কথা বলা হচ্ছে তারা বাড়িতে থাকলেও মরতো। কারও হার্ট অ্যাটাক হয়েছে, কেউ অসুস্থ হয়েছে। তাই মারা গিয়েছে।” হাসতে হাসতে মন্ত্রীমশায়ের সংযোজন, “ওরা বাড়িতে থাকলেও মরতো। ছ’মাসে ২ লক্ষ মানুষের মধ্যে ২০০ জন এমনিই মারা যায়। এতে চমকানোর কিছু নেই।”

[আরও পড়ুন: দেশে একদিনে করোনার কবলে ১২ হাজার ১৯৪ জন, সামান্য বাড়ল অ্যাকটিভ কেস]

জেপি দালালের এই মন্তব্যে রীতিমতো বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে হরিয়ানায়। কৃষক ইস্যুতে এমনিই চাপে ছিল হরিয়ানা সরকার। মন্ত্রীর এই সংবেদহীনতায় চাপ আরও বাড়ে মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খাট্টারের উপর। বাধ্য হয়েই পরে কৃষিমন্ত্রী জেপি দালাল ক্ষমা চান। দাবি করেন, তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তিনি কাউকে আঘাত করতে চাননি।

[আরও পড়ুন: ভোররাতে অন্ধ্রপ্রদেশে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা, মৃত ১৪, গুরুতর আহত আরও ৪]

এদিকে, শনিবার কৃষক বিক্ষোভে আরও একটা তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা ঘটেছে। এদিন গাজিপুরে কৃষকদের বিক্ষোভস্থলে যান মহাত্মা গান্ধীর নাতনি তারা গান্ধী ভট্টাচার্য। কৃষকদের বিক্ষোভকে সমর্থন জানিয়ে তিনি বলেন,”আমরা আছি আপনাদের জন্যই। কৃষকদের ভালতেই লুকিয়ে দেশের ভবিষ্যৎ। সরকারের উচিত কৃষকদের প্রতি যত্নবান হওয়া।” প্রসঙ্গত, তারা গান্ধী ভট্টাচার্য এই মুহূর্তে গান্ধী মেমোরিয়াল মিউজিয়ামের চেয়ারপার্সন।

Advertisement
Next