নতুন ২ মন্ত্রী ভোট পরবর্তী হিংসায় জড়িত, শপথ অনুষ্ঠানে গরহাজিরা নিয়ে সাফাই শুভেন্দুর

12:39 AM Aug 04, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যের নতুন ৯ মন্ত্রীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। মুখ্যসচিব আমন্ত্রণ জানালেও অনুষ্ঠানে গরহাজির ছিলেন শুভেন্দু। কিন্তু কেন? সাংবাদিক সম্মেলনে গরহাজিরার কারণ জানালেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।

Advertisement

বিজেপি (BJP) বিধায়কের কথায়, “ক্যাবিনেটে এমন দু’জন মন্ত্রী আছেন, যাদের বিরুদ্ধে ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ রয়েছে। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টে দুই বিধায়ক পার্থ ভৌমিক এবং উদয়ন গুহর নাম রয়েছে। যাঁরা বিধানসভা নির্বাচনের পর ভারতীয় জনতা পার্টিকে ভোট দেওয়ার অভিযোগে সনাতনী হিন্দুদের উপর অত্যাচার করেছিলেন।” এরপরই শুভেন্দুর কটাক্ষ, ওই অনুষ্ঠানে গিয়ে তো এসব বলা যেত না। হাসিমুখে থাকতে হত। নমস্কার করতে হত। তাতে উত্তর ২৪ পরগনা এবং কোচবিহার এলাকার সনাতনী হিন্দুদের অপমান করা হত।” নতুন মন্ত্রীদের দেড় লাখি মন্ত্রী বলেও কটাক্ষ করেন শুভেন্দু।

[আরও পড়ুন: রাজ্য মন্ত্রিসভায় বিরাট রদবদল, নতুন মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন কারা?]

বুধবার রাজভবনে নতুন ৭ মুখ-সহ মোট নয় মন্ত্রীকে শপথবাক্য পাঠ করান অস্থায়ী রাজ্যপাল লা গণেশন। মন্ত্রিসভায় নতুন মুখের মধ্যে রয়েছেন প্রদীপ মজুমদার, পার্থ ভৌমিক, উদয়ন গুহ, স্নেহাশিস চক্রবর্তী, বাবুল সুপ্রিয়, বিপ্লব রায়চৌধুরী, তাজমুল হোসেন, সত্যজিৎ বর্মনরা। রয়েছেন বীরবাহা হাঁসদাও। স্বাভাবিকভাবেই দায়িত্ব পেয়ে আপ্লুত তাঁরা। শপথগ্রহণের পরই রাজ্যপাল এবং মুখ্যমন্ত্রীর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেন বাবুলরা।

Advertising
Advertising

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব ছেড়ে আসার একবছরের মধ্যে রাজ্যের পূর্ণমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। তাঁর কথায়, মুখ্যমন্ত্রী এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব ছেড়ে আসার এক বছরের মধ্যে নতুন দায়িত্ব পেলাম। যা দায়িত্ব দিয়েছেন তা পালন করব। মুখ্যমন্ত্রীর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন আরেক মন্ত্রী প্রদীপ মজুমদার। তাঁর কথায়, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একাধিক গুরুত্বপূর্ণ এবং অভিনব সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমি ওঁর সঙ্গে কাজ করে আপ্লুত। যা দায়িত্ব দেবে তা পালন করব।”

[আরও পড়ুন: ‘চক্রান্ত হচ্ছে’, হাসপাতাল থেকে বেরনোর পথে মুখ খুললেন অর্পিতা, নীরব পার্থ]

Advertisement
Next