Advertisement

Bengal Polls: কমিশনের নির্দেশ অমান্য করে জনসভায় হাজির রাহুল সিনহা

10:38 PM Apr 13, 2021 |
Advertisement
Advertisement

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। ‘অগণতান্ত্রিক’ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। নিষেধাজ্ঞা উঠলেই রাত ৮ থেকে পরপর দুটি জনসভা করবেন তিনি। একইদিনে উত্তর থেকে দক্ষিণে প্রচারে ঝড় তুলবেন অমিত শাহ, রাজনাথ সিং, জেপি নাড্ডারা। প্রতি মুহূর্তের  আপডেট:

Advertisement

রাত ৯.৩৫: বিধাননগরের জনসভায় হাজির মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। “অদিতি খুব মিষ্টি মেয়ে, ওকে সবাই ভোট দেবেন, কেউ বাদ যাবেন না”, রাজারহাট-গোপালপুরের দলীয় প্রার্থীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ মমতা।পাশাপাশি কোভিড পরিস্থিতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “যখন একটু ভাল হয়েছিল, তখন সবাইকে টিকা দেওয়া দরকার ছিল। কেন্দ্র তা করেনি। আজ যে আবার কোভিড বাড়ছে, তার জন্য দায়ী মোদি সরকার।”

সন্ধে ৮.১৫: ভোট প্রচারে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হতেই বারাসতের জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। “আমার প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করছে আর বিজেপি নেতারা এসে প্রচার করে যাচ্ছে। এটা কি ঠিক? এর বিচার আমি জনতার হাতেই ছাড়লাম।” বলেন তৃণমূল নেত্রী।

সন্ধে ৭.০৫: কমিশনের নির্দেশ অমান্য করে জনসভায় হাজির রাহুল সিনহা। নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগে ৪৮ ঘণ্টা প্রচারে নিষেধাজ্ঞা বিজেপি প্রার্থীর। তা সত্ত্বেও তিনি এদিন হাবড়ার একটি জনসভায় উপস্থিত ছিলেন। যদিও এনিয়ে রাহুলের সাফাই, তিনি নিজের সভায় কোনও মন্তব্য রাখেননি। জনতার কাছ থেকে ভোটও চাননি। অন্যের সভা দেখতেই শুধু উপস্থিত হয়েছিলেন।  

সন্ধে ৬.২০: ২ মে দিদির বিদায় নিশ্চিত। ২ তারিখ থেকেই সোনার বাংলা গড়ার কাজ শুরু হবে। বিধাননগরের জনসভায় বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

সন্ধে ৬.০০: বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের রোড শোয়ে উত্তেজনা। বর্ধমান শহরের পাওয়ার হাউস পাড়া থেকে শুরু হয় মিছিল। রসিকপুর মোড়ে মিছিল এলে মিছিল লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি শুরু হয় বলে দাবি বিজেপির। এরপরই সেখানে থাকা তৃণমূল কার্যালয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়।

বিকেল ৫.৩৫: শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে পুনর্নির্বাচনের সিদ্ধান্ত কমিশনের। আগামী ১৭ তারিখ অর্থাৎ পঞ্চম দফা নির্বাচনের দিনই পুনরায় ভোট হতে পারে ওই বুথে। চতুর্থ দফার ভোটে এই বুথের বাইরেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন চারজন সাধারণ মানুষ। সেখানকার প্রিসাইডিং অফিসারের ডায়েরিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। তাঁর ডায়েরির রিপোর্টে জানা গিয়েছে, ওই বুথে ১০ এপ্রিল ভোট প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হতে পারেনি। 

বিকেল ৫.২৫: শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করাতে আরও কড়া কমিশন। এদিন কমিশনের তরফে রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়-সহ প্রত্যেক হেভিওয়েট নেতা-নেত্রী ও তারকাদের মন্তব্যের দিকে নজর রাখা হবে।

বিকেল ৫.০২: এবার অনুব্রত মণ্ডলকে শোকজ করল নির্বাচন কমিশন।

দুপুর ৩:৩৫: ইসলামপুরে রোড শো করছেন অমিত শাহ। 

দুপুর ৩.১৭: পূর্ব বর্ধমানে রোড শো করছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। 

দুপুর ৩.১০: সাড়ে তিন ঘণ্টা পর ধরনাস্থল ছাড়লেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাড়ির পথে রওনা দিলেন তিনি।

দুপুর ৩.০০: তৃণমূল নেত্রী ধরনাস্থল ছাড়ার আগে গান্ধীমূর্তির পাদদেশে আসেন কবীর সুমন, হরনাথ চক্রবর্তী, শুভাপ্রসন্ন, ভরত কলও। 

দুপুর ২.৪১: গান্ধীমূর্তি পাদদেশে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনাকে সমর্থন করলেন সমাজবাদি পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদব। টুইটারে লিখলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি এটা প্রমাণ করছে যে বিজেপি এই নির্বাচনে হারছে। তাই এভাবে নিজেদের হতাশা প্রকাশ করছে বিজেপি।”

 

দুপুর ২.৩৭: মমতার ধরনার বিরুদ্ধে সরব বাম নেতৃত্ব। বাম নেতা তথা সংযুক্ত মোর্চার যাদবপুরের প্রার্থী সুজন চক্রবর্তীর কটাক্ষ, “ধরনায় বসাও এক ধরণের প্রচার।” 

দুপুর ২.২০: মেমারিতে রোড শো করলেন বাবুল সুপ্রিয়। মুখ্যমন্ত্রীর ধরনা নিয়ে কটাক্ষ করে বলেন, “স্কুল সাসপেন্ড করলে বাড়ি গিয়ে লজ্জায় বসে থাকতাম। এতবড় মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরেও এতটুকু লজ্জা নেই গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসেছেন।” 

দুপুর ২.১৮: কালনায় রোড শো করছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা।

দুপুর ২.০৩: নাগরাকাটায় জনসভায় বক্তব্য রাখতে শুরু করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

দুপুর ১.৫৬: শিলিগুড়ির গান্ধী মূর্তির সামনে ধরনাতে মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস।

দুপুর ১.৪৪: নাগরাকাটায় পৌঁছলেন বিজেপির তারকা প্রচারক অমিত শাহ।

দুপুর ১.২২: রাজারহাট গোপালপুর বিধানসভা কেন্দ্র তৃণমূলের প্রার্থী  অদিতি মুন্সী-র সমর্থনে ৫টায় বাগুইআটি বাসস্ট্যান্ডে  উপস্থিত থাকবেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

দুপুর ১.১০: করিমপুরে জনসভায় বক্তব্য রাখছেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

বেলা ১২.৪৮: আপাতত এনআরসির কোনও পরিকল্পনাই নেই। দার্জিলিংয়ে সাফ জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

বেলা ১২.৪৪: গান্ধী মূর্তির পাদদেশে বসে চার নম্বর ছবি আঁকলেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

বেলা ১২.৩৩: দার্জিলিংয়ে বক্তব্য রাখছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত। গোর্খা সমস্যায় স্থায়ী সমাধানের আশ্বাস দিলেন বিজেপি নেতা। বাংলায় ক্ষমতায় আসার ৬ মাসের মধ্যে সিঙ্কোনা বাগানের প্রজাপাট্টা দেওয়ার আশ্বাস দিলেন তিনি। 

বেলা ১২.২৫: শীতলকুচি কাণ্ড নিয়ে মন্তব্যের জের। এবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে নোটিস দিল নির্বাচন কমিশন। বুধবার সকাল ১০টার মধ্যে জবাব তলব করা হয়েছে।

বেলা ১২.০৯: ধরনাস্থলে বসে ছবি আঁকছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনটি ছবি এঁকেছেন তিনি। 

সকাল ১১.৫৩: মমতার পর এবার বিজেপি নেতা তথা হাবড়ার প্রার্থী রাহুল সিনহার প্রচারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন। আগামী ৪৮ ঘণ্টা নির্বাচনী প্রচার করতে পারবেন না তিনি। উল্লেখ্য, শীতলকুচি কাণ্ড নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন তিনি। ইতিপূর্বে আরেক বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও সতর্ক করে কমিশন। 

 

সকাল ১১.৪৯: রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার জন্য ধরনাস্থলের চারিদিক ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে। তৈরি হয়েছে অস্থায়ী তাঁবু। 

সকাল ১১.৪১: তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনামঞ্চে থাকবেন না কোনও তৃণমূল নেতা-কর্মী। অস্থায়ী তাঁবুতে একাই রয়েছেন তিনি। এই ঘটনাকে বেনজির বলে দাবি ওয়াকিবহাল মহলের। ধরনাস্থলে নেই কোনও পতাকা, দলীয় ফেস্টুন, ব্যানারও। 

 

সকাল ১১.২০: গান্ধীমূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসার কথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এলাকাটি সেনার নিয়ন্ত্রণাধীন। ওই এলাকায় ধরনার জন্য অনুমতি চাওয়া হয়েছে ভারতীয় সেনার কাছে। সেই অনুমতি এখনও মেলেনি। তৃণমূলের আবেদন খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সেনা।  

সকাল ১১.১৫: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। ‘অগণতান্ত্রিক’ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসবেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

Advertisement
Next