Advertisement

গভীর রাতে কৈখালি ও লেকটাউন বিজেপি পার্টি অফিসে হামলা, কাঠগড়ায় তৃণমূল

12:46 PM Apr 05, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ব্যুরো: ভোটের আগে রাজনৈতিক অশান্তিতে উত্তপ্ত উত্তর ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ অংশ। রবিবার গভীর রাতে বিধাননগর (Bidhannagar), রাজারহাট-গোপালপুর (Rajarhat Gopalpur) ও হাড়োয়া বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত কয়েকটি জায়গায় বিজেপির উপর হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে উত্তেজনার পারদ চড়ল সর্বত্র। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অশান্ত এলাকাগুলির আইনশৃঙ্খলায় বাড়তি নজর দেওয়া হয়েছে পুলিশ প্রশাসনের তরফে। প্রসঙ্গত, এই তিন কেন্দ্রেই ভোট হবে আগামী ১৭ এপ্রিল।

Advertisement

রাজারহাট-গোপালপুর বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত কৈখালির (Kaikhali) চিড়িয়ামোড় এলাকা এবং বিধাননগর বিধানসভার লেকটাউনের (Lake Town) বিজেপির নির্বাচনী কার্যালয়ের মধ্যে মাত্র কয়েক কিলোমিটারের দূরত্ব। রবিবার গভীর রাতে এই দুই পার্টি অফিসেই হামলা চলে। দলীয় নেতা, কর্মীদের উপর দু’জায়গায় হামলার ঘটনায় কাঠগড়ায় শাসকদল। অভিযোগ, কৈখালির চিড়িয়ামোড়ে বিজেপির নির্বাচনী কার্যালয়ে পাথর ছুঁড়ে কাচ ভেঙে দেওয়া, ব্যানার-ফেস্টুন ছিঁড়ে দলীয় পতাকা পোড়ানো হয়েছে। আবার লেকটাউন এলাকায় এক বিজেপি (BJP) কর্মীর বাড়ির সামনে গিয়ে তাঁকে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। কৈখালির ঘটনায় এয়ারপোর্ট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। অন্যদিকে, রাতেই লেকটাউন থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়ে থানার সামনে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা।

[আরও পড়ুন: প্রচারে গিয়ে ফল বিলি, নির্বাচনী বিধিভঙ্গে অভিযুক্ত বিজেপি প্রার্থী রাহুল সিনহা

হাড়োয়াতেও ঘটেছে একই ঘটনা। বিজেপি পার্টি অফিসে হামলা চালানোর অভিযোগে এখানেই কাঠগড়ায় তৃণমূল। এর প্রতিবাদে বিজেপি সমর্থকদের বিক্ষোভে সকালেও থমথমে এলাকা। বিধাননগর, রাজারহাট-গোপালপুর, হাড়োয়া – উত্তর ২৪ পরগনার এই তিন কেন্দ্রেই ভোট আগামী ১৭ তারিখ। প্রথম দুই কেন্দ্রের বিস্তীর্ণ অংশ বরাবরের স্পর্শকাতর এলাকা। নির্বাচনী আবহেই শুধু নয়, বছরভর নানা রাজনৈতিক অশান্তিতে তপ্ত থাকে এখানকার বিভিন্ন জায়গা। ভোটের মুখে পরিস্থিতি আরও অশান্ত হচ্ছে। আসলে এই তিন কেন্দ্রেই তৃণমূল-বিজেপি হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। তৃণমূলের শক্ত জমি কেড়ে নিতে গেরুয়া শিবিরের সংগঠনও শক্তিশালী হচ্ছে। ফলে লড়াই আরও জোরদার হচ্ছে। আর ততই বাড়ছে রাজনৈতিক অশান্তি।

[আরও পড়ুন: পারিবারিক বিবাদে লাগল রাজনৈতিক রং, মদ্যপের ধারাল অস্ত্রে জখম বিজেপি নেতার ভাই]

Advertisement
Next