কৃষ্ণাঙ্গ ‘হত্যাকাণ্ডে’র বিরুদ্ধে সরব আইসিসি, বিশ্বকাপের ভিডিওই হয়ে উঠল প্রতিবাদের ভাষা

07:05 PM Jun 05, 2020 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের ‘হত্যাকাণ্ড’কে ঘিরে জ্বলছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ঘটনার পরই তীব্র ধিক্কার জানিয়েছেন ফুটবল থেকে ক্রিকেট, বাস্কেটবল থেকে টেনিসের একের পর এক তারকারা। এবার সেই প্রতিবাদে শামিল আইসিসিও। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা টুইট করে বুঝিয়ে দেয়, বৈচিত্র ছাড়া ক্রিকেট হয় না।

Advertisement

শ্বেতাঙ্গ মার্কিন পুলিশের কৃষ্ণাঙ্গ ফ্লয়েডকে হাঁটু দিয়ে ঘাড় চেপে শ্বাসরোধ করে ‘খুনে’র ঘটনা ঘিরে বিশ্ব এখনও উত্তাল। বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সেই আন্দোলনে ইতিমধ্যেই যোগ দিয়েছেন লিওনেল মেসি, লেব্রন জেমস, ক্রিস গেইল, ডোয়েন ব্রাভোরা। প্রতিবাদস্বরূপ এঁরা সবাই ইনস্টাগ্রামে গত মঙ্গলবার ‘ব্ল্যাকআউট টিউশডে’ (#BlackoutTuesday) আন্দোলনে নেমে পড়েন। তবে শুধু সোশ্যাল মিডিয়ায় ধিক্কার জানানোই নয়, শফোর্ড, পল পোগবারা একযোগে সমালোচনা করতে শুরু করেন যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপোলিসের নক্ক্যারজনক কাণ্ডের। ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ক্রিকেটার ক্রিস গেইল বলে দেন, তাঁকেও বর্ণবিদ্বেষের মুখে পড়তে হয়েছিল। বিদেশি তারকাদের পাশাপাশি বর্ণবৈষম্যের এই প্রতিবাদে শামিল প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার ডোড্ডা গণেশও। সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেগঘন পোস্ট করেন তিনি। আগামীদের মন শক্ত করে বর্ণবৈষম্যের উর্ধ্বে ভাবার আহ্বান জানা তিনি।

[আরও পড়ুন: জাতপাত তুলে মন্তব্য করায় যুবরাজের বিরুদ্ধে FIR, বিপাকে পড়ে ক্ষমা চাইলেন ভারতীয় তারকা]

Advertising
Advertising

এদিকে, ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি আইসিসি’র কাছে প্রতিবাদে নামতে আরজি জানান। সেই আরজিতে শুক্রবার সাড়া দেয় আইসিসি। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা এদিন নব্বই সেকেন্ডের একটা ভিডিও টুইট করেছে। যেখানে ইংল্যান্ডের গত বিশ্বকাপ জয়ের মুহূর্ত দেখানো হয়েছে। যেখানে চরম উত্তেজনার সুপার ওভারে নিউজিল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের বল করছেন বার্বেডোজজাত হোফ্রা আর্চার। সঙ্গে আইসিসি লেখে, ‘বৈচিত্র ছাড়া ক্রিকেট ভাবা যায় না।’

গত বছর ইংল্যান্ডের যে টিমটা বিশ্বজয়ী হয়, তার অধিনায়কই ইংরেজ নন। ইয়ন মর্গ্যান আইরিশ। টিমের এক নম্বর পেসার আর্চারের জন্ম ওয়েস্ট ইন্ডিজে। বিশ্বকাপের সেরা পারফর্মার ইংরেজ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস নিউজিল্যান্ডজাত। দুই স্পিনার মইন আলি এবং আদিল রশিদ দু’জনই পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত। ইংল্যান্ডের হয়ে শুরুতেই নেমে যিনি ঝড় তুলে দিতেন, সেই জেসন রয় দক্ষিণ আফ্রিকাজাত। এমনকী বিশ্বকাপ জয়ের পর মর্গ্যান বলেছিলেন, বৈচিত্রের মধ্যে একতাই তাঁর টিমের সাফল্যের মূলমন্ত্র। এবার ইংল্যান্ডের সেই বিশ্বজয়ের মুহূর্তকেই বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের অস্ত্র করল আইসিসি।

[আরও পড়ুন: নোয়াপাতি ভূঁড়ি-স্থূলকায় শরীর নিয়ে বেসামাল মারাদোনা! শোরগোল ফেলেছে ভাইরাল ভিডিও]

The post কৃষ্ণাঙ্গ ‘হত্যাকাণ্ডে’র বিরুদ্ধে সরব আইসিসি, বিশ্বকাপের ভিডিওই হয়ে উঠল প্রতিবাদের ভাষা appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next