আক্রমণ অব্যাহত, মারিওপোলের পর ইউক্রেনের আরেক বড় শহর দখলের পথে রুশ সেনা

03:26 PM Jun 14, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বেশ কয়েকদিন ধরেই ইউক্রেনের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে লাগাতার আক্রমণ চালাচ্ছে রুশ (Russia-Ukraine War) সেনা। তার ফলেই এবার আরও একটি শহর দখল করতে চলেছে রাশিয়া (Russia)। মারিওপোলের পরে সেভেরদোনেৎস্ক শহর প্রায় দখল করে ফেলেছে রাশিয়া। এমনটাই জানা গিয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই শিল্পশহরে আটকে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। কিন্তু তাঁদের উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না, কারণ শহরের একমাত্র সংযোগকারী সেতুটি গুঁড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

রাশিয়ার তরফে জানানো হয়েছে, সমগ্র ইউক্রেন দখল করা তাদের লক্ষ্য নয়। দেশের পূর্বদিকে অবস্থিত দোনবাস (Donbas) অঞ্চলকে ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণ থেকে মুক্ত করাই একমাত্র কাজ। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই সেভেরদোনেৎস্ক (Sievierodonetsk) দখল করতে মরিয়া ছিল রুশ বাহিনী। স্থানীয় গভর্নর সের্গেই গাদাই জানিয়েছেন, “রুশ হামলায় গোটা শহর তছনছ হয়ে গিয়েছে। শহর থেকে বেরনোর পথও বন্ধ করে দিয়েছে রুশ সেনা।”

[আরও পড়ুন: FATF-এর ‘ধূসর তালিকা’ থেকে মুক্তি পাচ্ছে পাকিস্তান! বৈঠকে হতে পারে বড় ঘোষণা]

সেভেরদোনেৎস্ক সম্পর্কে জেলেনস্কি (Volodymyr Zelenskyy) বলেছেন, ”এলাকায় মারাত্মক সংঘর্ষ চলছে।” রুশ হামলার নিন্দাও করেছেন তিনি। নানা সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, শহরের অধিকাংশই রাশিয়ার দখলে চলে গিয়েছে। এক্ষেত্রেও মারিওপোলের মতোই একটি কেমিক্যাল কারখানায় আশ্রয় নিয়েছেন সেনা-সহ সাধারণ মানুষ। সেখান থেকে বেরনোর উপায় নেই বলেই জানিয়েছেন সের্গেই। 

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

যুদ্ধের মধ্যেই নতুন সমস্যার মধ্যে পড়েছে ইউক্রেন(Ukraine)। নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন সেদেশের সাধারণ মানুষ। খাদ্যের অভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন তাঁরা। এছাড়াও যত্রতত্র মানুষকে কবর দিয়েছে রাশিয়া। সেই মৃতদেহের জীবাণু ছড়িয়ে পড়ছে চারদিকে। তাতেও আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ। সের্গেই বলেছেন, শহরের সত্তর শতাংশ রুশ সেনার হাতে চলে গিয়েছে। তবে আহতদের হাসপাতালে পাঠানোর পথটুকু খোলা রয়েছে বলেই জানিয়েছেন তিনি। প্রায় ধ্বংসস্তূপ হয়ে গিয়েছে সেভেরদোনেৎস্ক। এহেন পরিস্থিতিতে রাশিয়ার তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, চাইলে আত্মসমর্পণ করতেই পারে ইউক্রেনীয় সেনা। কিন্তু তা না করলে ওদের মরতেই হবে।

[আরও পড়ুন: ইসলাম বিরোধী মন্তব্যের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, প্রবাসীদের দেশে পাঠানোর সিদ্ধান্ত কুয়েতের

Advertisement
Next