Advertisement

Taliban Terror: আফগানিস্তানে কাজে গিয়ে বিপদের মুখে উত্তরবঙ্গের বাসিন্দারা, উদ্বিগ্ন পরিবার

04:27 PM Aug 18, 2021 |

অভ্রবরণ চট্টোপাধ্যায়, শিলিগুড়ি: গিয়েছিলেন নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করতে। আর তারপর নিজেরাই পড়লেন চূড়ান্ত নিরাপত্তাহীনতায়। এই মুহুর্তে তালিবানের কবজায় থাকা আফগানিস্তানে (Afghanistan) আটকে পড়েছেন কার্শিয়াংয়ের ২ বাসিন্দা। শেখর গুরুং ও সুনীল সুব্বা নামে দু’জনের খোঁজ পেয়েছে জেলা প্রশাসন। তাঁদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে উদ্ধারের সবরকম চেষ্টা চলছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর।

Advertisement

গত জুলাই মাসে আফগানিস্তানে গিয়েছিলেন কার্শিয়াংয়ের (Karseong) বাসিন্দা শেখর গুরুং। পেশার স্বার্থেই ‘কাবুলিওয়ালা’র দেশে যাওয়া তাঁর। সেখানেই বছর খানেক ধরে কাজ করছিলেন। পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম ছিল একমাত্র ইন্টারনেট। কখনও হোয়াটসঅ্যাপ কলে (WhatsApp call) কথাবার্তা হতো। কিন্তু কয়েকদিন ধরে আর শেখর গুরুংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছিলেন না পরিবারের সদস্যরা। তারপর খবরে দেখেন, আফগানিস্তানে কীভাবে তালিবানি (Taliban) শাসন কায়েম হচ্ছে। তাতেই চিন্তা বাড়ে পরিবারের। কোনওভাবেই যোগাযোগ করতে পারছেন না। একই পরিস্থিতি সুনীল সুব্বার পরিবারেরও। তাঁর সঙ্গে গত সোমবার যোগাযোগ করতে পেরেছিলেন তাঁর আত্মীয়রা। তারপর থেকে সব শূন্য। সুনীল রয়েছেন কাবুলে। আর সেখানে এই মুহূর্তে কার্যত তাণ্ডব চালাচ্ছে তালিবান। সাধারণ নাগরিকদের নিরাপত্তার বলাই নেই। আর বাইরে থেকে কাজ করতে যাওয়া শ্রমিকদের যে কী অবস্থা, তা অনুমান করে শিউড়ে উঠছেন পরিবারের সদস্যরা। কার্শিয়াংয়ের জেলাশাসক এস পুণ্যবালাম জানিয়েছেন, এসব পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁদের নিরাপদে ফেরানোর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: BJP’র শহিদ সম্মান যাত্রায় ফের অশান্তি, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুভাষ সরকারকে কালো পতাকা দেখাল TMC]

এরকমই চিন্তায় দিন কাটাচ্ছেন মাল ব্লকের জলপাইগুড়ির ওদলাবাড়ির দুটি পরিবার। ওদলাবাড়ি বিধানপল্লি এলাকার বাসিন্দা  আমানুল্লা খান বলেন,  ”আমার দিদি, জামাইবাবু এবং দুই ভাঞ্জা বর্তমানে আফগানিস্থানে রয়েছে। গত ১৫ বছর আগে আমার দিদি, বিবি আইসা খানের বিয়ে হয় আফগানিস্তানে। দিদি আফগানিস্তানে একজন ডাক্তার এবং জিজাজি হাসপাতালের কমপাউন্ডার। বর্তমানে খুব খারাপ অবস্থায় রয়েছে তাঁরা। বাড়ির বাইরে বের হতে পারছে না। দোকানপাট বন্ধ। বাড়িতে খাবার নেই।”  ৫দিন আগে ভিডিও কলে যোগাযোগ হয়েছিল। সরকারের কাছে তাঁর অনুরোধ, ”আমার দিদির পরিবারকে কোনওভাবে ইন্ডিয়ায় নিয়ে আসা হোক।”
 
ওদলাবাড়ির বাসিন্দা ইলি ছেত্রী খান বলেন, ”আমার দিদি আফগানিস্তানের খেরকোট থাকেন, খেরকোট থেকে এয়ারপোর্ট কাবুলের দুরত্ব প্রায় ৪০০ কিলোমিটার।  আর বাই রোডে রাস্তায় রাস্তায় তালিবানদের নাকা চেকিং চলছে। তারা বিভিন্ন জায়গায় চেকপোস্ট লাগিয়ে রেখেছে। কিভাবে আমার দিদির পরিবার ফিরবে, বুঝতেই পারছিনা। সরকারে কাছে আবেদন দিদির পরিবারকে ফিরিয়ে আনা হোক।

[আরও পড়ুন: Coronavirus: ভক্তদের জন্য ফের খুলল Belur Math, প্রবেশের শর্ত জানেন?]

আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্ন রাজ্য প্রশাসন। নয়াদিল্লির সঙ্গেও এ বিষয়ে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।   এ রাজ্যের বাসিন্দাদের খোঁজখবর নিয়ে তাঁদের নিরাপদে ফেরানোর জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিতে প্রতিটি জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে  নবান্ন (Nabanna)। মঙ্গলবারই সেই নির্দেশ পৌঁছেছে জেলাশাসকদের কাছে। আর সেই নির্দেশ পেয়েই কাজ শুরু করে দিয়েছেন জেলাশাসকরা। কার্শিয়াংয়ের ২ বাসিন্দা কাবুলে আটকে থাকার খবর পেয়েই উদ্ধারে তৎপর প্রশাসন।

Advertisement
Next