ক্ষমতায় এলে তিন তালাক আইন বাতিল করার সিদ্ধান্ত কংগ্রেসের

09:00 PM Feb 07, 2019 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্ষমতায় এলেই বাতিল করা হবে বিতর্কিত তিন তালাক আইন। রাহুল গান্ধীর উপস্থিতিতে ঘোষণা করলেন মহিলা কংগ্রেসের সভানেত্রী সুস্মিতা দেব। কংগ্রেসের এই হেভিওয়েট নেত্রী শুরু থেকেই তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা করার বিরোধী ছিলেন। এবার প্রকাশ্যে জানিয়ে দিলেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে তিন তালাক শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না। বিজেপি সরকারের আনা আইন বাতিল করবেন তাঁরা।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[রেপো রেট কমাল RBI, কমতে পারে গৃহঋণে সুদের হার]

এদিন দিল্লির জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সংগঠনের বৈঠকে মহিলা কংগ্রেসের সভানেত্রী বলেন, “অনেকেই আমাদের বলছিলেন তিন তালাক আইন আনলে মহিলাদের ক্ষমতায়নে সাহায্য করবে। কিন্তু আমরা এই আইনের বিরোধিতা করছি। কারণ, নরেন্দ্রে মোদি এই আইনকে অস্ত্র করে শুধু মুসলিম পুরুষদের জেলে ভরতে চাইছেন। আমরা তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করার পক্ষপাতি নয়।” সুস্মিতা দেব যখন এই ঘোষণা করছেন, তখন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তিনি সরাসরি এ বিষয়ে কোনও ঘোষণা না করলেও, তাঁর কথাতেও এই ঘোষণারই ইঙ্গিত মিলেছে। রাহুল বলেন, “দেশের প্রতিটি মানুষ এই দেশের মালিক। এই দেশে গঠনে দেশের প্রতিটি সংখ্যালঘুর অবদান রয়েছে। ভারত প্রতিটি ধর্মের মানুষ এই দেশ তৈরি করেছে। এখন বিভিন্ন আদর্শের মধ্যে সংঘাত হচ্ছে এই সরকারের আমলে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী কখনও বিভেদের কথা বলতে পারেন না। যে প্রধানমন্ত্রী বিভেদের কথা বলবেন তাঁকে বদলে ফেলা হবে।”

[বিজেপি নেতাদের আতঙ্ক, হেলমেট পরে সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন সাংবাদিকরা]

এদিকে কংগ্রেসের এই পদক্ষেপ ঘোষণার পর তীব্র আক্রমণ শানিয়েছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, ভোট ব্যাংকের রাজনীতি করছে কংগ্রেস। বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র বলেন, “সংখ্যালঘু তোষণের মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে কংগ্রেস। এটা পশ্চাদগামী মানসিকতার পরিচয়। ওঁরা সুপ্রিম কোর্টকেও সম্মান করে না।” যদিও কংগ্রেসের দাবি, তাঁরা তিন তালাকের পক্ষে নন। তবে, তিন তালাক দেওয়ার জন্য কারও জেল হোক এটাও তাঁরা চান না। সুপ্রিম কোর্ট ইতিমধ্যেই তিন তালাককে অসাংবিধানিক ঘোষণা করেছে। সুতরাং, কেউ তিন তালাক দিলেও তা বৈধ হিসেবে গণ্য হবে না। সুতরাং, তাঁকা আলাদা করে শাস্তি দেওয়ার কোনও যুক্তি খুঁজে পাচ্ছেন না কংগ্রেস নেতারা।

Advertising
Advertising

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next