Advertisement

আত্মসম্মানে আঘাত করলে কোনও ‘সুপার পাওয়ার’ও ছাড় পাবে না! ফের চিনকে হুঁশিয়ারি রাজনাথের

09:38 AM Jan 15, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আত্মসম্মানে আঘাত করে এমন কোনও কিছুই ভারত সহ্য করবে না। আমরা যুদ্ধ চাই না। কিন্তু আমাদের গরিমায় আঘাত করলে কোনও সুপার পাওয়ারকেও ছেড়ে কথা বলব না। সেনা দিবসের আগে ফের সুপার পাওয়ার চিনকে হুঁশিয়ারি দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং (Rajnath Singh)।

Advertisement

লাদাখে (Ladakh) চিনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যা যে এখনও মেটেনি, সে ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন রাজনাথ। সপ্তাহ দুয়েক আগে তিনি স্বীকার করে নেন, গত কয়েক মাস ধরে চিনের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনার পরও উল্লেখযোগ্য কোনও অগ্রগতি হয়নি। সীমান্ত সমস্যার সমাধান হওয়া তো দূরের কথা, নিজেদের এলাকায় পরিকাঠামো তৈরির কাজ করছে ড্রাগন। তাই এখনই লাদাখ সীমান্ত থেকে সেনা প্রত্যাহার করাটা বুদ্ধিমানের কাজ নয়। দিন দুই আগে একই ইঙ্গিত দিয়েছেন সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানেও (MM Naravane)। তাঁর দাবি ছিল, ভারতের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে চিন (China) এবং পাকিস্তান। দুই প্রতিবেশী দেশের এই যোগসাজশ মোটেই উপেক্ষা করার মতো নয়।

[আরও পড়ুন: করোনার জের, সাধারণতন্ত্র দিবসে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন না কোনও বিদেশি রাষ্ট্রনেতা]

এই পরিস্থিতিতে তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে রাজনাথের মুখে চিনের উদ্দেশে হুঁশিয়ারির বার্তা শোনা গেল। প্রতিরক্ষামন্ত্রী বললেন,”আমরা একেবারেই যুদ্ধের পক্ষে নই। সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করাটা আমাদের প্রাথমিক দায়িত্ব। কিন্তু কোনও সুপার পাওয়ার যদি আমাদের গরিমায় আঘাত করে, তাহলে তাদের যোগ্য জবাব দেওয়ার ক্ষমতা আমাদের সেনা জওয়ানদের আছে।” প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন,”আমরা শুরু থেকেই আমাদের প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখায় বিশ্বাসী। এটা আমাদের সংস্কৃতি।” চিন প্রসঙ্গে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সাফ বক্তব্য, নিজেদের সীমান্ত রক্ষা করতে ভারতীয় সেনা অসম্ভব সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে।

[আরও পড়ুন: বিরোধিতার জের! কৃষি আইন নিয়ে গড়া কমিটি থেকে সরে দাঁড়ালেন কৃষক নেতা ভুপিন্দর সিং মান]

প্রসঙ্গত, গত বছরের মাঝামাঝি থেকেই লাদাখ সীমান্তে ভারত এবং চিনের মধ্যে রীতিমতো যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। অন্যায়ভাবে চিনা সেনার ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করার চেষ্টা ‘রুখে দিয়েছে’ ভারতীয় সেনা। এমনকী চার দশক পর গত বছর দুই দেশের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষও হয়েছে। তারপর থেকে দু’দেশের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক হলেও সমস্যা এখনও মেটেনি। 

Advertisement
Next