Advertisement

দেশের পরিবহণ ব্যবস্থায় ‘বিপ্লব’, ১০০ লক্ষ কোটি টাকার গতিশক্তি প্রকল্পের সূচনা মোদির

01:22 PM Oct 13, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘোষণা করেছিলেন লালকেল্লায় স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে। ৩ মাস কাটার আগেই সেই উচ্চাকাঙ্ক্ষী গতিশক্তি রাষ্ট্রীয় মাস্টার প্ল্যানের (GatiShakti-National Master Plan) সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। বুধবার দিল্লির প্রগতি ময়দান থেকে ১০০ লক্ষ কোটি টাকা ব্যায়ের এই প্রকল্পের সূচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

Advertisement

১০০ লক্ষ কোটি টাকারও বেশি মুল্যের এই প্রকল্প মূলত রাস্তা, রেললাইন, বিমান পরিষেবার উন্নয়নের জন্য। প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, মার্চ মাস থেকে শুরু হওয়া ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে আগামী ৭৫ সপ্তাহে ৭৫টি বন্দে ভারত ট্রেন দেশের প্রতিটি কোণকে জুড়ে দেবে। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য তৈরি হচ্ছে নতুন বিমানবন্দরও। উড়ান যোজনার আওতায় আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবর্ষের মধ্যে দেশে আরও ১০৯টি বিমানবন্দর করা হবে। আরও বেশ কয়েকটি হেলিপ্যাড তৈরি করা হবে। তৈরি হবে এয়ারস্ট্রিপ। ২০২৪-২৫ অর্থবর্ষের মধ্যে সব মিলিয়ে ২২০টি বিমানবন্দর, হেলিপ্যাড বা এয়ার স্ট্রিপ তৈরি হবে।

[আরও পড়ুন: ‘কাশ্মীরে নতুন যুগের সূচনা’, অমিত শাহর প্রশংসায় মানবাধিকার কমিশন, পালটা মেহেবুবার]

শুধু তাই নয়, ২০২৪-২৫ অর্থবর্ষের মধ্যে ভারতে জাতীয় সড়ক বেড়ে হবে ২০০ লক্ষ কিমি। যা ২০১৪ সালে ছিল ৯১ হাজার কিলোমিটার। চলতি বছরের শেষেই দেশে জাতীয় সড়কের দৈর্ঘ্য বেড়ে হবে ১.৩ লক্ষ কোটি কিলোমিটার। সরকারের টার্গেট ২০২৪-২৫ অর্থবর্ষ পর্যন্ত দেশের গ্যাস পাইপলাইন পরিষেবার দৈর্ঘ্যও দ্বিগুণ করা হবে। ওই সময়ের মধ্যে দেশে ৩৫ লক্ষ কিমি অপটিক্যাল ফাইবার পাতা হবে। এর পাশাপাশি প্রচুর নতুন রেললাইন তৈরিরও পরিকল্পনা আছে কেন্দ্রের।

[আরও পড়ুন: আফগানিস্তানের মাটি যেন সন্ত্রাসের উৎস না হয়, G-20 বৈঠকে সাফ বার্তা মোদির]

স্বাধীনতা দিবসের মঞ্চ থেকেই প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেছিলেন, দেশের উন্নয়নে গতি আনতে পরিবহণ ব্যবস্থায় গতি আনা জরুরি। পরিবহণ ব্যবস্থার উন্নয়নের ফলে দেশের গতি বাড়বে, শিল্প আসবে। এই দশকে গতির শক্তি নতুন ভারতের ভিত্তি তৈরি করবে। সেই লক্ষ্যে কেন্দ্র একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দেবে, যা পরিকল্পনা এবং কর্ম সম্পাদনকে আরও আধুনিক ও সহজ করে তুলবে। সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে কেন্দ্রের পরিকল্পিত কয়েকটি প্রকল্প উপর কাজ করা হবে এবং পরে তা জেলা ও পৌর স্তরেও পৌঁছে দেওয়া হবে। এদিন প্রকল্পের সূচনা করে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, সরকার আগামী ২৫ বছরের জন্য ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করছে। এই মাস্টারপ্ল্যান একুশ শতকের সব পরিকল্পনাকে গতিশক্তি দেবে। 

Advertisement
Next