Advertisement

ফের বাধা! একাধিক যুক্তি দেখিয়ে ‘দুয়ারে রেশন’প্রকল্পে আপত্তি ডিলারদের সর্বভারতীয় সংগঠনের

06:28 PM Oct 01, 2021 |

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) ঘোষণা করা ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্পে বাধা বিপত্তি কিছুতেই কাটছে না। আদালতে ব্যর্থ হওয়ার পরও রাজ্যে এই প্রকল্প কার্যকর করতে নারাজ রেশন ডিলাররা। ফেয়ার প্রাইস শপ এবং রেশন ডিলারদের সর্বভারতীয় সংগঠনের তরফে এই প্রকল্প কার্যকর না করার পিছনে একাধিক যুক্তি খাঁড়া করা হয়েছে। তাঁদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও জানিয়ে দিয়েছেন, এই প্রকল্পের বাস্তবায়ন সম্ভব নয়।

Advertisement

শুক্রবার দিল্লিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ অ্যান্ড রেশন ডিলার্স অ্যাসোশিয়েশনের তরফে বিশ্বম্ভর বসু জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারের দুয়ারে রেশন (Duare Ration) প্রকল্প এখন কার্যকর করা সম্ভব নয়। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: মাথাপিছু আয়বৃদ্ধিতে দেশের সেরা বাংলা, ঘোষণা অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রর]

বিশ্বম্ভরবাবুর দাবি, দুয়ারে রেশন প্রকল্প চালুর জন্য যে পরিমাণ লোকবল প্রয়োজন, সেটা রেশন ডিলারদের কাছে নেই। তাছাড়া, যেদিন যেদিন দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে রেশন দেওয়া হবে, সেদিন সেদিন দোকান বন্ধ রাখতে হবে। সেক্ষেত্রে অনেক গ্রাহককেই দোকানে এসে খালি হাতে ফিরে যেতে হবে। তাছাড়া গাড়ি কেনার জন্য রাজ্য সরকার যে টাকা দিচ্ছে তা পর্যাপ্ত নয়। তাছাড়া গাড়ি কেনা হলেও, সেটা রাখার জায়গাটা একটা বড় সমস্যা। সর্বোপরি ন্যাশনাল ফুড সিকিউরিটি অ্যাক্ট (National Food Security Act) অনুযায়ী, রেশন সামগ্রী এভাবে দোকানের বাইরে বের করা সম্ভব নয়। প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে রাজ্যে দুয়ারে রেশন প্রকল্পের পাইলট প্রজেক্ট চলছে। এরই মধ্যে রেশন ডিলারদের এই আপত্তি সরকারের জন্য চিন্তার কারণ হতে পারে।

[আরও পড়ুন: একটানা ৫০ দিন জলমগ্ন এলাকা, প্রতিবাদে জমা জলের মধ্যেই ধরনায় বসলেন তৃণমূল বিধায়ক]

এদিকে, রাজ্যের রেশন গ্রাহকদের জন্য অন্য একটি সুখবর আছে। দিওয়ালির (Diwali) দিন থেকেই রাজ্যে রেশন ব্যবস্থায় যুক্ত হচ্ছে ডাল। অর্থাৎ চাল এবং গমের পাশাপাশি এবার থেকে নিয়ন্ত্রিত মূল্যে ডালও কিনতে পারবেন গ্রাহকরা। আপাতত বাংলায় পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে এই প্রকল্প চালু করছে কেন্দ্র। প্রথম থেকেই গ্রাহকদের মুগ, মুসুর এবং অড়হড় ডাল দেওয়া হবে। প্রকল্প সফল হলে পরবর্তীকালে গোটা দেশে সেটা চালু করা হবে।

Advertisement
Next