Advertisement

‘এখানেও মন্দির ছিল’, এবার কর্ণাটকের জুম্মা মসজিদ ভাঙার দাবি শ্রীরাম সেনার

07:06 PM Oct 19, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাবরি মসজিদের পরে এবার জুম্মা মসজিদ (Jumma Masjid)। কর্ণাটকে (Karnataka) অবস্থিত সপ্তদশ শতকের এক মসজিদকে মন্দির হিসেবে ‘পুনরুদ্ধারে’র দাবি করল হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শ্রীরাম সেনা। দলের বিতর্কিত নেতা প্রমোদ মুথালিক একটি ভিডিওয় এই দাবি করেছেন।

Advertisement

সেই ভিডিওয় ওই নেতাকে বলতে শোনা যায়, ”রাম মন্দিরের জন্য আমাদের ৭২ বছর লড়াই করতে হয়েছিল। ৭২ বছরের লড়াইয়ের পরে আমরা ওখানে মন্দির নির্মাণ করতে পেরেছি। একই ভাবে আমি চ্যালেঞ্জ করে বলছি গড়গের জুম্মা মসজিদও আসলে ভেঙ্কটেশ্বর মন্দির ছিল। টিপু সুলতানের আমলে যে সব মন্দির ধ্বংস করা হয়েছিল তার মধ্যে অন্যতম ছিল এই মন্দিরটি। এবং আমাদের কাছে প্রমাণ রয়েছে। আমরা এর জন্য লড়াই করব।”

[আরও পড়ুন: হিন্দু সংস্কৃতির অবমাননার অভিযোগ! চাপে পড়ে বিজ্ঞাপন সরাল পোশাক নির্মাতা সংস্থা]

বেঙ্গালুরু থেকে ৪১২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই মসজিদটির সামনে দাঁড়িয়েই ওই ভিডিও রেকর্ড করেন প্রমোদ। তাঁর দাবি, জুম্মা মসজিদের জায়গায় যে আগে মন্দির ছিল, সেই সংক্রান্ত দু’টি নথি এর মধ্যেই তাঁদের হাতে এসেছে। তাঁরা সেই নথি দু’টিকে সামনে রেখে আন্দোলন শুরু করতে চান। কেবল এই মসজিদটিই নয়, গোটা রাজ্যে আরও যেসব জায়গায় মন্দিরের জায়গায় মসজিদ তৈরি করা হয়েছিল বলে তাঁদের কাছে তথ্য আছে, সর্বত্রই তাঁরা আন্দোলন করবেন বলেও দাবি করেছেন ওই নেতা। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়ার পরই তা ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, কর্ণাটকে এর আগে আরেকটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল যেখানে বজরং দল ও বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সদস্যদের দেখা গিয়েছিল একটি গির্জার মধ্যে ভজন গাইতে গাইতে ঢুকে পড়তে। তাঁদের অভিযোগ ছিল, খ্রিস্টান পাদরিরা প্রান্তিক সম্প্রদায়ের মানুষদের জোর করে খ্রিস্ট ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হল। এবার ভাইরাল হল জুম্মা মসজিদ সংক্রান্ত এই ভিডিওটিও। রাজ্যের সাম্প্রদায়িক পরিবেশ বিঘ্নিত হতে পারে, এমন আশঙ্কাও করছেন অনেকে।

[আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘অঙ্গুঠা ছাপ’! কংগ্রেসের টুইটে বিতর্ক]

Advertisement
Next