Advertisement

দিল্লিতে Mamata: বৃহস্পতিবার নীতীন গড়করির সঙ্গে সাক্ষাৎ TMC নেত্রীর, দেখা জাভেদ-শাবানার সঙ্গেও

08:22 AM Jul 29, 2021 |
Advertisement
Advertisement

তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর প্রথম দিল্লি সফরে মমতার নজরে অবিজেপি জোট। মুখ্যমন্ত্রীর সফরের তৃতীয় দিন সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে সাক্ষাৎ-সহ একগুচ্ছ কর্মসূচি ছিল মমতার। পাশাপাশি সফরের চতুর্থ দিনও বেশ কিছু কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। জেনে নিন এক নজরে।

Advertisement

রাত ৯টা ৩০: বৃহস্পতিবারও একগুচ্ছ কর্মসূচি মমতার। দুপুর দু’টোয় তিনি দেখা করবেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতীন গড়করির সঙ্গে। বিকেল চারটেয় তৃণমূল নেত্রীর দেখা করার কথা DMK নেত্রী কানিমোঝির সঙ্গে। বৃহস্পতিবার সন্ধেয় মমতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেন জাভেদ আখতার এবং শাবানা আজমি। 

মমতাকে শুভেচ্ছা কেজরিওয়ালের: ‘বিধানসভায় জয়ের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রথমবার দেখা। আমি তাঁকে জয়ের শুভেচ্ছা জানিয়েছি। রাজনৈতিক ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’ জানালেন কেজরিওয়াল।  

মমতা-কেজরিওয়াল সাক্ষাৎ: দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে দেখা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উপস্থিত ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। 

  

পেগাসাস নিয়ে সরব মমতা: সোনিয়ার সঙ্গে বৈঠকে করোনা এবং গেগাসাস ইস্যু নিয়েও আলোচনা হয়েছে। জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। “পেগাসাস নিয়ে সংসদে কেন প্রতিক্রিয়া দিচ্ছে না সরকার। পেগাসাস নিয়ে সত্যি জানতে চায় দেশবাসী। সংসদে এ নিয়ে আলোচনা না হলে কোথায় হবে? পাড়ার কোনও চায়ের দোকানে নয়, পেগাসাস নিয়ে সংসদেই আলোচনা করতে হবে।” দাবি মমতার। 

সোনিয়ার সঙ্গে বৈঠকে জোট নিয়ে আলোচনা: বৈঠক ইতিবাচক। সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন রাহুল গান্ধীও। বিরোধী ঐক্য নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিজেপিকে হারাতে এক হতেই হবে। বিজেপিকে হারাতে হলে সবার একত্রিত হওয়া দরকার। আমি একা কিছু নই। আমি রাস্তায় নেমে লড়াই করি। বৈঠক শেষে বললেন মমতা। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, একটা জোট গঠন হবে। সমমনোভাবাপন্ন সব দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে, সেই জোটে অংশ নিতে। 

সোনিয়া-মমতা বৈঠকে রাহুলও: ১০ জনপথে শুরু মমতা-সোনিয়া চায়ে পে চর্চা। মোদি বিরোধী বৃহত্তর জোট নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা। উপস্থিত রাহুল গান্ধীও। 


জোট নিয়ে আশাবাদী মুখ্যমন্ত্রী: দেশজুড়ে বিজেপি-বিরোধী জোট নিয়ে আশাবাদী মমতা। ‘গোটা ভারত মোদির বিরুদ্ধে লড়বে। কে নেতৃত্ব দেবে এখনই বলা যাবে না।’ মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বামেদের প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, প্রধান শত্রু কে, সেটা বামেদের ঠিক করতে হবে। বাংলায় বাম-কংগ্রেসকে ঠিক করতে হবে, তাঁরা কী চায়।  

সাংসদদের নির্দেশ মমতার: সংসদে প্রতিদিন হাজির থাকতে হবে। নিয়মিত প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নিতে হবে। অন্য বিরোধীদের সঙ্গে সমন্বয় সাধন করে চলতে হবে। দলীয় সাংসদদের নির্দেশ মমতার। 

দলীয় সাংসদদের সঙ্গে বৈঠক মমতার: রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়ের বাড়িতে মমতা। উপস্থিত আছেন TMC’র অধিকাংশ সাংসদ। সাংসদদের নিয়ে কৌশল বৈঠক করবেন দলনেত্রী। উপস্থিত আছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

Advertisement
Next