Advertisement

রাজভবনের দ্বিতীয় বৈঠকেও নেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, UGC তদন্তের হুঁশিয়ারি ধনকড়ের

09:12 AM Dec 24, 2021 |

দীপঙ্কর মণ্ডল: প্রথমবার আমন্ত্রণের পর দ্বিতীয় আহ্বানও ব্যর্থ। এবারও রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের ডাকা বৈঠকে অনুপস্থিত রাজ্যের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও উপাচার্যরা (VC)। বৃহস্পতিবার তাঁদের তরফে কোনও সাড়া না পেয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় (Jagdeep Dhankhar) টুইটে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বা UGC-কে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির তদন্তের ইঙ্গিতও দিয়েছেন ধনকড়।

Advertisement

২০ ডিসেম্বরে ব্যর্থতার পর ফের ২৩ তারিখ রাজভবনে রাজ্যের ১১ টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তার সঙ্গে বৈঠক করতে চেয়েছিলেন ধনকড়। শুক্রবার সকালে রাজভবন থেকে জানানো হয়েছে, একটি বিশ্ববিদ্যালয়েরও আচার্য (Chancellor) বা উপাচার্য আসেননি। ২০ তারিখ বৈঠকের কয়েকঘণ্টা আগে আসবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তারা। সেবার অসন্তোষ প্রকাশ করে রাজ্যপাল সবাইকে ২৩ ডিসেম্বর আসার নির্দেশ দেন।
বৃহস্পতিবার রাজভবনে (Rajbhaban) বৈঠকের সবরকম প্রস্তুতি ছিল। নির্দিষ্ট সময়ে রাজ্যপাল ও তাঁর সচিব নিজেদের চেয়ারে বসে অপেক্ষা করেন। কিন্তু একজন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তাকেও দেখা যায়নি রাজভবনে। শূন্য চেয়ারের একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে রাজভবন। উল্লেখ্য, দশজন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যর স্বাক্ষর সম্বলিত একটি চিঠি ২০ তারিখ রাজভবনে পৌঁছয়। তাতে জানানো হয়, কোভিড আবহে তাঁরা বৈঠকে যেতে পারবেন না।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: বড়সড় সাফল্য, এসএসকেএমের একার দক্ষতায় লিভার প্রতিস্থাপনের পর সুস্থতার পথে প্রৌঢ়]

২০২০’র জানুয়ারিতে রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা তাঁর ডাক প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। এবার বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্তারাও না আসায় বেজায় চটেছেন ধনকড়। গত ৮ ডিসেম্বর তিনি নিজে টুইট করে প্রথম বৈঠকের খবর জানিয়েছিলেন। কিন্তু একজনও আসেননি। ফের একটি চিঠি-সহ ফের টুইট করেন রাজ্যপাল। সেখানে তিনি বলেছিলেন, “রাজভবনে প্রত্যেকটি বৈঠক কোভিড (COVID-19) প্রোটোকল মেনে করা হয়। আপনাদের অজুহাত ঠিক নয়। সম্ভবত আপনারা সরকারের ভয়ে আসছেন না। আগামী ২৩ ডিসেম্বর বৈঠকের নতুন নির্ঘন্ট ঠিক করা হয়েছে। আশাকরি আপনারা আসবেন।”

[আরও পড়ুন: স্থায়ীভাবে রাজ্যের ডিজি হচ্ছেন মনোজ মালব্যই, ছাড়পত্র কেন্দ্রের]

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যরা জানিয়েছেন, তাঁদের কয়েকজন উপাচার্যর বয়স হয়েছে। তাঁদের কোমর্বিডিটি রয়েছে। কোভিডের নয়া স্ট্রেন ওমিক্রনের (Omicron) কথা ভেবে তাঁরা মুখোমুখি বৈঠক এড়িয়ে যাচ্ছেন।

আচার্য, উপাচার্যদের জন্য সাজানো চেয়ার শূন্য।

পদাধিকার বলে রাজ্যপাল রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ভিজিটর। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য ও উপাচার্যরা না আসার ক্ষোভ টুইট করে মুখ্যমন্ত্রীকে ট্যাগ করেছেন ধনকড়। রাজ্যপালের দায়িত্ব নেওয়ার পর নবান্নের সঙ্গে তাঁর বিভিন্ন ইসু্যতে সংঘাত হয়। এখনও যা অব্যাহত। আচার্য হিসাবে তিনি রাজ্য বিশ্ববিদ্যালেয়র উপাচার্যদের একসময় তলব করেছিলেন। কিন্তু কেউ রাজভবনে আসেননি। সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি হল। রাজভবনের বক্তব্য, প্রত্যেকটি বৈঠক সমান গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়। সেইমত প্রস্তুতি ছিল। কেউ না আসায় প্রবল অসন্তুষ্ট হয়েছেন রাজ্যপাল।

Advertisement
Next