Advertisement

১০ মাস গা ঢাকা দিয়েও রেহাই মিলল না, নিউটাউন পর্ন শুটিংকাণ্ডে গ্রেপ্তার মূল অভিযুক্ত

02:04 PM Oct 24, 2021 |

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: নিউটাউনে (New Town) পর্নফিল্ম শুটিংয়ের ঘটনায় গ্রেপ্তার মূল চক্রী। প্রকাশ দাস নামে ওই ব্যক্তি পর্ন (Porn) শুটিংয়ের মডেল সাপ্লায়ার বলে পুলিশ সূত্রে খবর। ১০ মাসের মধ্যে পর্নোগ্রাফি চক্রের মূল পাণ্ডাকে গ্রেপ্তার করে সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। শনিবার রাতে টালিগঞ্জের কাছে রিজেন্ট পার্ক থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। এই চক্রের সঙ্গে আরও কে কে জড়িত আছে, তার সন্ধান চালাচ্ছেন তদন্তকারীরা।

Advertisement

আগস্টের গোড়ার দিকে নিউটাউনে পর্নছবির শুটিং সংক্রান্ত কেলেঙ্কারি প্রকাশ্যে আসে। অভিযোগ, মডেলদের ডেকে নিয়ে গিয়ে প্রথমে নেশা করানো হতো। তারপর তাঁদের দিয়ে জোর করে পর্ন ছবির শুট করানো হতো। শুধু নিউটাউনই নয়, এর জাল ছড়িয়ে ছিল দক্ষিণ কলকাতার বিস্তীর্ণ অংশে। গড়ফা, বালিগঞ্জের স্টুডিওতে শুটিং হতো। এসব স্টুডিওতে অভিযান চালিয়ে এ পর্যন্ত পুলিশের জালে ধরা পড়েছে মোট ৪ জন। তবে মূল অভিযুক্ত তখনও অধরা ছিল। সে পলাতক ছিল। কিন্তু তাতেও রেহাই মিলল না। অবশেষে তদন্তকারীদের হাত গ্রেপ্তার হতে হল।

[আরও পড়ুন: বাঁশদ্রোণীতে বৈদ্যুতিন তার জড়ানো অবস্থায় মহিলার দেহ উদ্ধার, মৃত্যুর কারণে ধোঁয়াশা]

পুলিশ সূত্রে খবর, ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে পেশায় মডেল এক যুবতী বিধাননগর সাইবার ক্রাইম (Bidhannagar Cyber Crime) থানায় অভিযোগ জানায়, এক ব্যক্তির সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় পরিচয় হয়। রানিকুঠি এলাকায় তার প্রোডাকশন হাউস রয়েছে, এই পরিচয় দিয়ে তাকে টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে সুযোগ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। সেই অনুযায়ী মডেল মহিলা ওই ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তাঁকে প্রথম দিকে দুটি ছোট কাজ দেওয়া হয়। 

[আরও পড়ুন: বড়বাজারের পর মার্কুইস স্ট্রিট, খাস কলকাতায় ফের বাজেয়াপ্ত সোনার বিস্কুট]

এরপর ওই যুবতীকে বেশ কয়েকজনের সঙ্গে পরিচয় করায়। এবং পরবর্তীতে তাকে বিধাননগর কমিশনারেট এলাকার একটি হোটেলে নিয়ে গিয়ে মদ্যপান (Drink) করিয়ে জোর করে পর্নোগ্রাফি শুট করায় বলে অভিযোগ। এবং বারংবার ওই চক্র তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে পর্ণগ্রাফি করতে বাধ্য করেছিল বলে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানায় জানায় ওই যুবতী। ঘটনার তদন্ত শুরু করে গত মার্চ মাসে ৫ জনকে এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করে সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। তবে এই ঘটনার মূল অভিযুক্ত প্রকাশ দাস পুলিশের জাল থেকে পালিয়ে যায়। অবশেষে ১০ মাস পর  রিজেন্ট পার্ক এলাকা থেকে অভিযুক্ত প্রকাশ দাসকে গ্রেফতার করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ।

Advertisement
Next