Partha Chatterjee: ১০ বছরের সম্পর্ক, যৌথভাবে সম্পত্তি কিনেছিলেন পার্থ-অর্পিতা! জোরাল দাবি ইডির

01:11 PM Jul 26, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দশ বছর ধরে সম্পর্ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়-অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের! যৌথভাবে সম্পত্তিও কিনেছিলেন তাঁরা। ঘনিষ্ঠ ও অত্যন্ত সুসম্পর্ক না থাকলে এভাবে যৌথ সম্পত্তি কিনতে পারেন না কেউ। এসএসসি দুর্নীতি মামলার তদন্তে নেমে রাজ্যের তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) এবং তাঁর ঘনিষ্ঠ মডেল অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে (Arpita Mukherjee) গ্রেপ্তারির পর এমনই দাবি এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ED)। আগেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নামে শান্তিনিকেতনে তিনটি বাড়ির খোঁজ মিলেছিল। তার মধ্যে একটির নাম ‘অপা’। মনে করা হচ্ছিল, অর্পিতা ও পার্থর নামের আদ্যক্ষর দিয়েই এই নামকরণ। 

Advertisement

Advertising
Advertising

পার্থ এবং অর্পিতাকে সোমবার আদালতে পেশ করে ১০ দিনের হেফাজতে নিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তাকরী সংস্থা। সোমবার অসুস্থ মন্ত্রীকে চিকিৎসার জন্য ভুবনেশ্বরের এইমসে (AIIMS) উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হলেও তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়নি। এইমসের চিকিৎসকরা একাধিক শারীরিক পরীক্ষার পর জানান, হাসপাতালে ভরতি হওয়ার মতো কোনও সমস্যা নেই পার্থবাবুর। ওষুধ খেলেই তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন। এরপর মঙ্গলবার সকাল ৫.৪০-এর বিমানে পার্থবাবুকে আনা হয় কলকাতায়। দমদম বিমানবন্দর থেকেই তাঁকে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে (CGO Complex) ইডি দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানেই চলবে জেরা।

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্ত যত এগোচ্ছে, ততই পরতে পরতে রহস্য উন্মোচিত হচ্ছে। রবিবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) ঘনিষ্ঠ অর্পিতাকে (Arpita Mukherjee) আদালতে পেশ করে ঠিক এই কথাই বলেছিল ইডি। বলা হয়েছিল, এই তদন্ত পেঁয়াজের মতো। খোসা যত ছাড়ানো হবে, তত ভিতর থেকে আরও নানা তথ্য বেরিয়ে আসবে। বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, ঘটনা প্রায় তেমনই। সোমবার ব্যাঙ্কশাল আদালতে ইডির পক্ষে ভারচুয়ালি সওয়াল করেন অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এস ভি রাজু। আবেদনে তিনি বলেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখোপাধ্যায় যৌথভাবে সম্পত্তি কিনেছিলেন। ফলে দু’জনের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা ও সুসম্পর্ক স্পষ্ট। সুসম্পর্ক না থাকলে ২০১২ সালে দু’জন একসঙ্গে এভাবে সম্পত্তি কিনতে পারতেন না বলে দাবি তাঁর।

[আরও পড়ুন: এবার মেট্রো স্টেশনে দাঁড়িয়েই চায়ে চুমুক, খুলছে নতুন দোকান]

পালটা পার্থবাবুর আইনজীবী দেবাশিস রায় আদালতে বলেন, দু’জনের মধ্যে নিশ্চয় যোগাযোগ ছিল। কিন্তু ফোনে। পার্থবাবুর জুনিয়রের কাছে কিছু টাকা ও সম্পত্তি থাকতেই পারে। কিন্তু সেই টাকা বা সম্পত্তি পার্থ চট্টোপাধ্যায়েরই হতে হবে, এমন কোনও মানে নেই। এদিনের শুনানিতে পার্থবাবুকে ভুবনেশ্বর থেকে ভারচুয়ালি হাজির করা হয় এজলাসে। দু’পক্ষের সওয়াল-জবাবের পর বিচারক পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ১০ দিন ইডি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। অন্যদিকে, অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কেও ৩ আগস্ট পর্যন্ত ইডি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। ইডি সূত্রে খবর, দু’জনকে একসঙ্গে বসিয়ে জেরা করা হবে।

[আরও পড়ুন: কালো ডায়েরি, স্কুল শিক্ষাদপ্তরের খামে ৫ লক্ষ টাকা, অর্পিতার ফ্ল্যাটে তল্লাশিতে আর কী পেল ED?]

এদিন এসএসকেএমের তরফে জানানো হয়েছে, পার্থবাবুর মেডিক্যাল টেস্টের রিপোর্টে উদ্বেগের কিছু নেই। কিছু সমস্যা থাকলেও তাঁকে হাসপাতালে থাকতে হবে না। 

Advertisement
Next