Advertisement

BJP-র ‘পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস’ঘিরে উত্তেজনা, আটক Suvendu, Soumitra Khan-সহ কয়েকজন

04:53 PM Aug 16, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তৃণমূলের (TMC) ‘খেলা হবে’ দিবসের পালটা কর্মসূচিতে নেমেছে বিজেপি (BJP)। রাজ্যজুড়ে গেরুয়া শিবিরের সদস্যরা পালন করছেন ‘পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস।’ আর তা ঘিরেই সোমবার দুপুরে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মধ্য কলকাতার রানি রাসমনি অ্যাভিনিউ। বিশৃঙ্খলতা ছড়ানোর অভিযোগে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari), রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh), বিজেপি যুব মোর্চা সভাপতি সৌমিত্র খাঁ (Soumitra Khan), প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক তথা বিজেপি নেতা শীলভদ্র দত্ত-সহ বেশ কয়েকজন। প্রতিবাদে সেখানেই অবস্থান বিক্ষোভে বসেন বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা। ঘটনার পর থেকে এলাকার নিরাপত্তা বাড়াতে আরও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Advertisement

রবিবারই স্থির হয়ে গিয়েছিল কর্মসূচি। সোমবার দুপুর দেড়টা নাগাদ রানি রাসমনি রোডে ‘পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস’ পালন করবেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh), বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীরা (Suvendu Adhikari)। সঙ্গে থাকবেন রাজ্য বিজেপির অন্যান্য নেতানেত্রীরা। সেইমতো এদিন দুপুরে ১টারও আগে থেকে রানি রাসমনিতে কর্মসূচি পালনের প্রস্তুতি শুরু করেছিল গেরুয়া শিবিরের কর্মী, সমর্থকরা। নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। অভিযোগ, পুলিশ তাতে বাধা দেয়। বাধার মুখে পড়ে কর্মসূচির স্থান বদল করা হয়। রানি রাসমনি রোডের বদলে গান্ধীমূর্তির পাদদেশে কর্মসূচি পালন করা স্থির হয়।

[আরও পড়ুন: Narada Case: হাইপ্রোফাইল মামলায় আচমকাই গতি কমাল CBI, শুনানি পিছনোর আবেদন হাই কোর্টে

তবে সেখানেও পুলিশের সঙ্গে বিজেপি নেতাদের বাকবিতন্ডার পর উত্তেজনা বাড়তে থাকে। এরপরই পুলিশ তাঁকে এবং আরেক বিজেপি নেতা শীলভদ্র দত্তকে আটক করে। তাঁদের জোর করে প্রিজন ভ্যানে তোলা হয়। সেখানেও পুলিশের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন শীলভদ্র দত্ত।  পরে কয়েকজন মহিলাকেও আটক করা হয়। পরে কর্মসূচিতে যোগ দিতে গিয়ে আটক হন শুভেন্দু অধিকারী, দিলীপ ঘোষ, দেবশ্রী চৌধুরীরাও। তাঁদের মহামারী আইনে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: সাতসকালে পার্ক সার্কাসে দু্র্ঘটনা, পুরসভার আবর্জনার গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু যুবকের] 

বিজেপির অভিযোগ, কর্মসূচিতে পুলিশ ইচ্ছাকৃতভাবে বাধা দিয়েছে। রাস্তার দু’দিকে ব্য়ারিকেড করে ঘিরে দেওয়া হয়েছে যাতে কেউ প্রবেশ করতে না পারে। এমনকী মহিলাদেরও জোর করে টেনেহিঁচড়ে  প্রিজন ভ্যানে তোলা হয়েছে। এই খবর করতে গিয়ে আহত হয়েছেন এক সাংবাদিকও।  পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠলে ডিসি, সেন্ট্রাল আকাশ মেঘারিয়াও পৌঁছে যান ঘটনাস্থলে। তাঁর সামনেই পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের হাতাহাতির হয়। বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা করেন তিনি। আটক নেতা, কর্মীদর লালাবাজারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই প্রতিবাদ জানিয়ে স্লোগান দেন কর্মীরা।  বিকেলে অবশ্য লালবাজার থেকে ছাড়া পান সবাই।  

Advertisement
Next