‘দ্রুতই মেধাতালিকাভুক্ত প্রার্থীদের নিয়োগ হবে’, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে আশ্বস্ত আন্দোলনকারীরা

06:47 PM Aug 08, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর (Bratya Basu) সঙ্গে বৈঠক ইতিবাচক, জানালেন এসএসসি আন্দোলনকারী শহিদুল্লা। দ্রুতই নবম থেকে দ্বাদশের মেধাতালিকাভুক্ত প্রত্যেককে নিয়োগ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে নিয়োগপত্র হাতে না পাওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলেই সাফ জানিয়েছেন শহিদুল্লা।

Advertisement

নিয়োগের দাবিতে পাঁচশো দিনেরও বেশি সময় ধরে শহরের নানা জায়গায় অবস্থান বিক্ষোভ করেছেন ২০১৬-র এসএসসিতে মেধাতালিকায় থাকা প্রার্থীরা। এই মুহূর্তে ধর্মতলায় গান্ধীমূর্তির পাদদেশে অবস্থান করছেন তাঁরা। সম্প্রতি এসএসসি-র দুর্নীতি প্রকাশ্যে আসার পর, বিশেষত প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেপ্তারির পর থেকে তাঁদের প্রতি সহমর্মী হয়েছে রাজ্যের শাসকদল। গত ২৯ জুলাই ক্যামাক স্ট্রিটের অফিসে তাঁদের এক প্রতিনিধিদলকে ডেকে কথা বলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেদিনই জানা যায়, আগামী ৮ আগস্ট শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সঙ্গে বৈঠক করবেন এসএসসি আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধিরা।

[আরও পড়ুন: অনুব্রতকে SSKM হাসপাতালে ভরতির প্রয়োজন নেই, স্বাস্থ্যপরীক্ষার পর দাবি চিকিৎসকদের]

পূর্ব নির্ধারিত সময়েই এদিন শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন আন্দোলনকারীদের ৮ জনের একটি প্রতিনিধিদল। বৈঠক শেষে শহিদুল্লা সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। তিনি বলেন, “সদর্থক আলোচনা হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, মেধাতালিকাভুক্ত কমবেশি ৬ হাজার চাকরি প্রার্থীকে নিয়োগ করা হবে। নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত নিয়োগ করা হবে।” এরপরই তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, নিয়োগের আশ্বাসে অবস্থান বিক্ষোভ থেকে কি সরে দাঁড়াবেন আন্দোলনকারীরা? শহিদুল্লা জানিয়েছেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত নিয়োগ পত্র হাতে মিলবে, ততক্ষণ পর্যন্ত গান্ধীমূর্তি পাদদেশে শান্তিপূর্ণ অবস্থান চলবে।

Advertising
Advertising

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে ব্রাত্য বসু জানিয়েছেন, অতি দ্রত মোট ২১ হাজার পদে নিয়োগ করা হবে । পুজোর আগেই শুরু হবে প্রক্রিয়া। ২১ হাজার পদের মধ্যে থাকছে আপার প্রাইমারি, নবম, দশম, একাদশ, দ্বাদশের প্রধান শিক্ষক ও নতুন শিক্ষক।

[আরও পড়ুন: শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীদের সম্পত্তি কয়েকশো গুণ বৃদ্ধি কীভাবে? হাই কোর্টে দায়ের জনস্বার্থ মামলা]

Advertisement
Next