জিন প্রযুক্তির সাহায্যে বিবর্তনবাদে নয়া অধ্যায় লিখে চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল সুইডিশ বিজ্ঞানীর

05:21 PM Oct 03, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল (Nobel Prize) পেলেন সুইডেনের সান্তে প্যাবো। মানুষের বিবর্তন নিয়ে গবেষণা করে এই পুরষ্কার জিতেছেন তিনি। সোমবার নোবেল কমিটির তরফ থেকে এই ঘোষণা করা হয়েছে। ২০২২ সালের প্রথম নোবেলজয়ী হিসাবে তাঁর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, ১৯৮২ সালে চিকিৎসাক্ষেত্রে নোবেল পেয়েছিলেন তাঁর বাবা সুনে বার্গস্ট্রম।

Advertisement

নোবেল (Nobel Prize Medicine) কমিটির ওয়েবসাইটে লেখা হয়েছে, মানবজাতির বিবর্তনে জিনোমের ভূমিকা নিয়ে গবেষণা করেছেন প্যাবো। সেই সঙ্গে মানবজাতির বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া শাখাগুলির বিশদ উল্লেখ রয়েছে তাঁর গবেষণায়। তবে এইবারের চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল প্রাপক একমাত্র প্যাবোই।তাঁর গবেষণা সম্পর্কেও বিশদে জানানো হয়েছে নোবেল কমিটির ওয়েবসাইটে। তাঁর তত্ত্বের নাম দেওয়া হয়েছে প্যালেওজিনোমিক্স। 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন:করছাড়ের ঘোষণার পরেই প্রত্যাহার, চাপের মুখে নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক নীতি]

বর্তমান সমাজে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া নিয়েন্ডারথাল প্রজাতির জিনোম সিকোয়েন্স করেছেন করেছেন প্যাবো। কার্যত অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন তিনি। তাঁর তথ্যের ভিত্তিতে বর্তমান মানবজাতির শারীরিক গঠন সংক্রান্ত গবেষণায় নতুন দিক উদ্ঘাটন করা যাবে বলেও মত বিশেষজ্ঞদের। প্রাচীন মানবজাতির দ্বারা বর্তমান সমাজ কীভাবে উপকৃত হবে, তার বিশ্লেষণও করা যাবে এই তত্ত্বের ভিত্তিতে।

তবে কোভিড পরবর্তী সময়ে অনেকেই মনে করেছিলেন, করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে যাঁরা গবেষণা করেছেন, নোবেল পুরষ্কার তাঁদেরই প্রাপ্য। কিন্তু নোবেল কমিটির তরফে বলা হয়েছে, একটি বিশেষ বিষয়ে গবেষণার স্বীকৃতি পেতে বহুদিন সময় লাগে। সেই কারণেই সাম্প্রতিককালে খুবই গুরত্বপূর্ণ হওয়া সত্বেও করোনা ভ্যাকসিনের উদ্ভাবকদের নোবেল পুরষ্কার দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে, কোভিডের কারণে দু’বছর থমকে ছিল নোবেল পুরষ্কার প্রদানের অনুষ্ঠান। অবশেষে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান বসতে চলেছে।

[আরও পড়ুন:‘রক্তগঙ্গা বইছে, হিংসা থামান’, পুতিনকে বার্তা পোপের]

Advertisement
Next