পয়গম্বর বিতর্কে চাপ বাড়ল ভারতের! এবার নূপুর শর্মার মন্তব্যের নিন্দা আমেরিকার

09:00 AM Jun 17, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বনবী হজরত মহম্মদকে নিয়ে নূপুর শর্মা-সহ দুই বিজেপি মুখপাত্রের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (USA)। ইসলামিক দেশগুলির পর আমেরিকা পয়গম্বর বিতর্কে আসরে নামায় কিছুটা হলেও চাপ বাড়ল ভারতের উপর। যদিও বিজেপি যেভাবে দুই পদাধিকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে তার প্রশংসাও করেছে বাইডেন (Joe Biden) প্রশাসন।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

মার্কিন বিদেশ দপ্তরের মুখপাত্র নেড প্রাইসের বক্তব্য, আমরা বিজেপির দুই পদাধিকারীর মন্তব্যের নিন্দা করছি। তবে একই সঙ্গে আমরা এটা দেখে খুশি যে প্রকাশ্যে বিজেপির (BJP) তরফে এই মন্তব্যের নিন্দা করা হয়েছে। নেড আরও জানিয়েছেন, ভারতে মানবাধিকার রক্ষা এবং ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে আমেরিকা নিয়মিত ভারত সরকারের শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। আমরা মানবাধিকার রক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়ার জন্য ভারত সরকারকে উৎসাহিত করছি।

[আরও পড়ুন: সন্ত্রাসবাদ বিরোধী সম্মেলনে যোগ দিতে ভারতে পাকিস্তান ও চিনের প্রতিনিধি!]

যদিও এই প্রথম নয়। ভারতে সংখ্যালঘুদের অধিকার তথা মানবাধিকার নিয়ে আগেও সরব হয়েছে আমেরিকা। জুনেই আমেরিকার (USA) স্টেট ডিপার্টমেন্টের আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত একটি রিপোর্টে ভারতকে নিশানা করা হয়। সেই রিপোর্টকে হাতিয়ার করে আমেরিকার বিদেশ সচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন (Anthony Blinken) ভারতকে নিশানাও করেন। তিনি বলেন, ভারতের ধর্মস্থানগুলি আক্রান্ত হচ্ছে। এই হামলার পরিমাণ দিন দিন বাড়ছে। ভারতীয় আধিকারিকরা ইচ্ছাকৃত ভাবে এই হামলা থেকে মুখ ফিরিয়ে থাকেন। যদিও আমেরিকার পেশ করা সেই রিপোর্ট তখনই খারিজ করে দেয় ভারত সরকার। বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, সম্পূর্ণ ভুল তথ্যের উপর ভিত্তি করে এই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: মা হাসপাতালে, ইডির কাছে সোমবার পর্যন্ত ‘ছুটি’ চাইলেন রাহুল গান্ধী]

কিন্তু নূপুর শর্মা (Nupur Sharma) বিতর্ককে হাতিয়ার করে নতুন করে আমেরিকার সরব হওয়াটা বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। ইতিপূর্বেই ইসলামিক দেশগুলি বিজেপির দুই মুখপাত্রের মন্তব্যের বিরোধিতায় সরব হয়েছে। তারপর আবার আমেরিকা সরব হওয়ায় কূটনৈতিক ক্ষেত্রে চাপ বাড়তে পারে নয়াদিল্লির উপর।

Advertisement
Next