ফের একদিনে সংক্রমণ ও মৃত্যুর রেকর্ড, রাজ্যের ঊর্ধ্বমুখী করোনা গ্রাফ বাড়াচ্ছে উদ্বেগ

09:01 PM Aug 01, 2020 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Coronavirus) সংক্রমণ রুখতে সপ্তাহে দু’দিন করে সম্পূর্ণ লকডাউনের পথে হেঁটেছে রাজ্য সরকার। তবে তা সত্ত্বেও যেন সংক্রমণে রাশ টানা যাচ্ছে না। হু হু করে বাড়ছে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় ফের সংক্রমণ এবং মৃত্যুর নিরিখে রেকর্ড গড়েছে রাজ্যের করোনা গ্রাফ। একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫৮৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৮ জনের।   

Advertisement

পরীক্ষা যত বেশি হবে, ততই আক্রান্তের সংখ্যা বাড়বে বলে আগেই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। ইতিমধ্যেই কলকাতা-সহ তিনটি শহরে উন্নতমানের ল্যাবরেটরিরও উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। লক্ষ্য একটাই তড়িঘড়ি রোগী চিহ্নিত করে দেশকে করোনামুক্ত করা। গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় করোনা পরীক্ষা হয়েছে ২০ হাজার ৬৫ জনের। তার মধ্যে ৭.৯৭ শতাংশ মানুষ করোনা আক্রান্ত। এখনও পর্যন্ত মোট ৯ লক্ষ ১৩ হাজার ৪৬৫ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। 

Advertisement

[আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অশালীন ছবি পোস্ট, গ্রেপ্তার যুবক]

উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে রাজ্যের করোনা গ্রাফ যেন রোজ একটু একটু করে আমজনতা থেকে প্রশাসনিক আধিকারিক সকলের চিন্তার ভাঁজ চওড়া করছে। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫৮৯ জন। তার ফলে রাজ্যে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭২ হাজার ৭৭৭ জন। সংক্রমণের নিরিখে সবচেয়ে বেশি চিন্তা বাড়াচ্ছে উত্তর ২৪ পরগনা এবং কলকাতা।  মৃত্যু হয়েছে ৪৮ জনের।  তার ফলে এখনও পর্যন্ত মোট করোনার বলি ১ হাজার ৬২৯ জন। তবে কঠিন সময়েও ভরসা জোগাচ্ছে রাজ্যের সুস্থতার হার। এখনও পর্যন্ত অদৃশ্য ভাইরাসকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬৯.৪১ শতাংশ মানুষ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ১৪৩ জন। তার ফলে করোনাজয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫০ হাজার ৫১৭ জন। তবে তা সত্ত্বেও আশঙ্কাতেই দিন কাটাচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

[আরও পড়ুন: দিনের পর দিন মর্গেই পড়ে করোনা রোগীর দেহ, সরকারি হাসপাতালের ‘গাফিলতি’তে আটকে সৎকার]
 

The post ফের একদিনে সংক্রমণ ও মৃত্যুর রেকর্ড, রাজ্যের ঊর্ধ্বমুখী করোনা গ্রাফ বাড়াচ্ছে উদ্বেগ appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next