ক্লাস চলাকালীন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর শ্লীলতাহানি! গ্রেপ্তার অভিযুক্ত শিক্ষক

09:44 PM Aug 06, 2022 |
Advertisement

বিপ্লবচন্দ্র দত্ত, কৃষ্ণনগর: স্কুলের মধ্যে ক্লাস চলাকালীন চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠল শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জ থানার গোয়ারিপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। জানাজানি হতেই তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ওই স্কুল শিক্ষকের নাম পঙ্কজ বিশ্বাস। শুক্রবার তাঁর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে শিক্ষককে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অন্যান্য দিনের মত গত বৃহস্পতিবার স্কুলে গিয়েছিল চতুর্থ শ্রেণির ওই স্কুলছাত্রী। তার পরিবারের অভিযোগ, গত বৃহস্পতিবার ক্লাস চলাকালীন পঙ্কজ বিশ্বাস নামে ওই স্কুল শিক্ষক তাঁদের মেয়েকে পড়ানোর নামে শ্লীলতাহানি করেছেন। চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী বাড়ি ফিরে সমস্ত ঘটনা খুলে বলে। তারপরই শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ জানানো হয়। শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। পুলিশের পক্ষ থেকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। 

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: হিন্দি গানের তালে ছাত্রদের সঙ্গে চটুল নাচ শিক্ষিকা, প্রধান শিক্ষকের, ভাইরাল ভিডিও ঘিরে শোরগোল]

এ বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে পুলিশের এক আধিকারিক জানান, ওই স্কুল ছাত্রীর বাড়ির লোকজনের অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার অভিযুক্ত স্কুল শিক্ষক পঙ্কজ বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও খবর। তবে শোনা যাচ্ছে, শনিবার সন্ধে পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনও কথা বলতে রাজি হননি পঙ্কজ বিশ্বাস।  

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

এদিকে ঘটনার পর থেকেই আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে চতুর্থ শ্রেণির ওই ছাত্রী। শোনা গিয়েছে, তদন্তের স্বার্থে তার মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হতে পারে। ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলার জন্য মনোবিদের পরামর্শও নেওয়া হতে পারে। প্রয়োজনে স্কুলের বাকি পড়ুয়া এবং শিক্ষকদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।     

[আরও পড়ুন: ‘টাকা কি ভগবান তোমার?’, SSC দুর্নীতিতে পার্থ-অর্পিতাকে ব্যঙ্গ টোটোর ব্যানারে, ভাইরাল চালক]

Advertisement
Next