বেআইনিভাবে চাষের জমি দখলের ছক? কৃষিকাজ ঘিরে বোমাবাজি, গুলিতে রণক্ষেত্র কাটোয়া

04:40 PM Dec 12, 2020 |
Advertisement

ধীমান রায়, কাটোয়া: নদীভাঙনের জেরে একসময় ভাগীরথীর গর্ভে তলিয়ে গিয়েছিল বিস্তীর্ণ এলাকার কৃষিজমি। বর্তমানে সেখানে নদীর চর পড়ে গিয়েছে। ওই নদীচরে নিজেদের জমিতে চাষের কাজ করতে গিয়ে শনিবার দুষ্কৃতী হামলার মুখে পড়লেন কাটোয়ার (Katwa) কয়েকজন কৃষক। তাঁদের লক্ষ্য করে চলল গুলি (Shootout), ছোঁড়া হল বোমা। পূর্ব বর্ধমান জেলার কেতুগ্রাম থানার নারায়ণপুর গ্রামে শনিবার দুপুরের দিকে ঘটনাটি ঘটে। এই হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন দুই কৃষক। আহত আরও কয়েকজন। তাঁদের কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। ঘটনা ঘিরে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। 

Advertisement

কাটোয়া হাসপাতালে জখন ২, ছবি: জয়ন্ত দাস

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার দুপুর নাগাদ কেতুগ্রাম ২ ব্লকের নারায়ণপুর গ্রামের কয়েকজন কৃষক ভাগীরথীর চরে চাষের কাজ করতে গিয়েছিলেন নারায়ণপুর গ্রামের কয়েকজন কৃষক। অভিযোগ, তখনই নতুনগ্রামের কয়েকজন তাদের ওপর আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা নিয়ে তাঁদের ওপর চড়াও হয়। গুলি লাগে দুই কৃষকের চোখের কাছে। জখম হন আরও কয়েকজন। আহতদের উদ্ধার করে কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যান প্রতিবেশীরা। তাঁদের চিকিৎসা চলছে।

[আরও পড়ুন: ‘হয় জলে অথবা জঙ্গলে না হলে পদ্মফুলে’, নাম না করে ‘বেসুরো’ রাজীবকে খোঁচা উদয়নের]

আহত অবস্থায় কৃষক পৈরাগ ঘোষ, সনাতন ঘোষরা অভিযোগ করেছেন, “আমাদের পরিবারের ও প্রতিবেশীদের প্রায় ১৫ বিঘা জমি নদীভাঙনে তলিয়ে গিয়েছিল। বন্যার কারণে গ্রামের বসতি পিছিয়ে আনতে হয়। যেখানে আমাদের জমিগুলো ছিল, সেখানে নদীর চর পড়ে গিয়েছে। সেই চরের মধ্যে নিজেদের জমিতে চাষাবাদ করতে গিয়েছিলাম আজ। তখন নতুনগ্রামের বেশ কিছু লোকজন বাধা দেয়। তারপরেই বোমাবাজি করে ও গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা।”

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: নজরে ভোট প্রস্তুতি, রাজ্যে আসছেন উপ মুখ্য নির্বাচন কমিশনার-সহ দুই কর্তা]

আরও অভিযোগ, ওই চরের কৃষিজমি নতুনগ্রামের কয়েকজন দখল করে চাষাবাদের চেষ্টা করছিল। সনাতন ঘোষরা চাষ শুরু করায় তাতে বাধা পেয়েই গুলি চালিয়েছে। ভয় দেখিয়ে বেআইনিভাবে জমি দখলের অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা। তবে পুলিশ জানিয়েছে, এদিন বিকেল পর্যন্ত এনিয়ে নির্দিষ্ট অভিযোগ দায়ের হয়নি। চাষের জমি ঘিরে এমন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে যাওয়ায় এলাকায় টহল দিচ্ছে পুলিশ।

Advertisement
Next