তৃণমূল নেতার হুঁশিয়ারিতেই কাজ! আউশগ্রামের বেহাল রাস্তার হাল ফেরাতে তৎপর প্রশাসন

03:51 PM Jun 21, 2022 |
Advertisement

ধীমান রায়, কাটোয়া: দু’দিন আগে তৃণমূলের প্রাক্তন বুথ সভাপতি সাংসদ, বিধায়কদের সাফ জানিয়ে ছিলেন, রাস্তা না হলে আর দলকে ভোটে জেতাতে পারবেন না। তাতেই নড়েচড়ে বসল প্রশাসন। মঙ্গলবার আউশগ্রামের দিগনগরের ২২৯ নম্বর বুথ এলাকার বেহাল রাস্তা পরিদর্শন করলেন জেলাপরিষদের পাঠানো প্রতিনিধিদল।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার আউশগ্রামের দিগনগর ১ নম্বর পঞ্চায়েতের ২২৯ নম্বর বুথের নামো তেলতা এবং উপর তেলতা গ্রামে পৌঁছয় প্রতিনিধিদল। রাস্তার কাজের জন্য মাপজোখ করতে দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গ গ্রামোন্নয়ন পর্ষদের পাঁচ সদস্যকে। ফলে শীঘ্রই কাজ শুরু হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: পাড়ুইয়ে বিষ খেয়ে আত্মঘাতী একই পরিবারের ৩ সদস্য, সুইসাইড নোটে সাতজনের নাম!]

উল্লেখ্য, রবিবার তৃণমূলের (TMC) পঞ্চায়েতীরাজ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় দিগনগর হাটতলায়। দিগনগর ১ অঞ্চল তৃণমূলের আয়োজনে এই পঞ্চায়েতীরাজ সম্মেলনে ছিলেন বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের ( (Bolpur LS) সাংসদ অসিত মাল, আউশগ্রামের বিধায়ক অভেদানন্দ থাণ্ডার-সহ ব্লক তৃণমূলের নেতৃত্ব। সাংসদ বিভিন্ন বুথের দলীয় প্রতিনিধিদের কাছে এলাকার উন্নয়ন সংক্রান্ত খোঁজখবর নেন। তখনই রাস্তার জন্য জোরালো দাবি ওঠে দিগনগর ১ অঞ্চলের নামো তেলতা, উপর তেলতা ২২৯ নম্বর বুথ থেকে। এদিনের সম্মেলনে ২২৯ নম্বর বুথের ফাইভম্যান কমিটির সদস্য তথা প্রাক্তন বুথ সভাপতি ভৈরব ঘোষ সম্মেলনে যোগ দেন। তিনি জানান ওই বুথের দলীয় সভাপতি সমীর সামন্ত অন্য কাজে ব্যস্ত থাকায় তিনি প্রতিনিধিত্ব করতে এসেছেন।

তারপরই ভৈরববাবু বলেছিলেন, “আমাদের নামো তেলতা থেকে উপর তেলতা প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা বেহাল। সেই সিপিএমের (CPM) আমলে মোরাম পড়েছিল। আমাদের দল ক্ষমতায় আসার পর থেকে আর কাজ হয়নি। বারবার দলের নেতৃত্ব থেকে প্রশাসনের কাছে দরবার করেও রাস্তা হয়নি। তাই আজ সম্মেলনে বলেছি, রাস্তা না হলে আর মানুষ আমাদের ভোট দেবে না। তাই ২২৯ নম্বর বুথে আর দলকে জেতাতে পারব না।” সেই খবর প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ‘সংবাদ প্রতিদিন ডট ইন’-এ। তার কয়েকদিনের মধ্যেই রাস্তার মাপজোখের কাজ নজরে পড়ল। সরকারি ইঞ্জিনিয়র বিশ্বজিৎ ঘোষ জানান, তাঁরা মাপজোখ করেছেন। স্কিম দপ্তরের কাছে শীঘ্রই জমা দেবেন। তারপর অনুমোদন হলেই কাজ শুরু হবে।

[আরও পড়ুন: প্রেমের টানে সুদূর মেক্সিকো থেকে হাওড়ায় তরুণী! সারলেন আইনি বিবাহ]

Advertisement
Next