Advertisement

বিতর্ক সত্ত্বেও সিদ্ধান্তে অনড় প্রযোজক সংগঠন, বাড়ি থেকেই চলবে সিরিয়ালের শুটিং

02:27 PM May 30, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘শুটিং ফ্রম হোম’। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এমন শব্দ কার্যত নতুনই শোনা গেল। একের পর এক সিরিয়ালে জমে ওঠা ড্রয়িংরুমের রং যাতে ফিকে না হয়, তার জন্য বাংলা ধারাবাহিকগুলির (Bengali serial) শুটিং বাড়ি থেকেই করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তবে এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত টলিপাড়া। প্রযোজকদের একাংশের এই ঘোষণায় বেশ ক্ষুব্ধ ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া। তাদের দাবি, বাড়িতে বসে শুটিংয়ের জন্য টেকনিশিয়ানদের আর প্রয়োজন হবে না। কিন্তু রবিবার প্রযোজক সংগঠনের বৈঠকের পর স্পষ্ট করে দেওয়া হল, আগের সিদ্ধান্তই বহাল থাকবে।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

করোনা রুখতে গত ১৬ মে থেকে রাজ্যে জারি কড়া বিধিনিষেধ। যার মেয়াদ ১৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। নিয়ম মেনে অনেকদিন ধরেই বন্ধ টলিপাড়ার (Tollywood) শুটিং। তবে গতবারের মতো যাতে শুটিংপাড়া স্তব্ধ না হয়ে যায়, তার জন্য বাড়ি থেকেই ধারাবাহিকের শুটিং করছেন শিল্পীরা। অনেকেই বাড়িতে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামও রেখেছেন। তা দিয়েই কাজ চলছে এবং ছোটপর্দায় নতুন পর্ব সম্প্রচারিত হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ভোটে হারের জের! শ্রাবন্তী-সহ বিজেপির তারকা প্রার্থীদের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করল কেন্দ্র]

কিন্তু স্টুডিওর কাজ সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কর্মহীন টেকনিশিয়ানরা। বাড়িতে শুটিং হওয়ায় টেকনিশিয়ানদের আর ভূমিকা থাকছে না। তাই বিকল্প ব্যবস্থার আবেদন জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (CM Mamata Banerjee) চিঠিও দেয় টেকনিশিয়ানদের ফেডারেশন। কিন্তু রবিবার প্রয়োজক সংগঠনের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল, আগের মতোই বাড়িতে চলবে শুটিং। তবে টেকনিশিয়ানদের বেতন পেতে যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সেদিকটিরও খেয়াল রাখা হবে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

বৈঠকের পর প্রযোজক সংগঠন জানায়, বাড়ি থেকে শুটিং চললে অন্তত ধারাবাহিকের পুরনো পর্ব দেখতে হবে না দর্শকদের। আর সকালে যে সময়টা দোকানপাট খোলা থাকে, তখন কোনওভাবে টেকনিশিয়ানদের এনে কাজে লাগানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে। কিন্তু শুটিং সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেলে, তাঁদের টাকা দিতে আরও বেশি সমস্যা দেখা দেবে। সেই কারণেই শুটিং চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত। সংগঠনের আশা, সবদিক বিচার করে নেওয়া তাদের এই সিদ্ধান্তকে মান্যতা দেবেন টেকনিশিয়ানরা। যদিও শুটিংয়ে তাঁদের কতখানি কাজে লাগানো সম্ভব, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

[আরও পড়ুন: থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত রোগীর জন্য রক্তদান মীরের, সাহায্যের আহ্বান জানালেন অন্যদেরও]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next