Advertisement

Coronavirus: দেশে ক্রমশ নিম্নমুখী কোভিড গ্রাফ, ২৩০ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন করোনা সংক্রমণ

09:59 AM Oct 18, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  কড়া বিধিনিষেধের সুফল। উৎসবের মরশুম কাটতেই দেশের কোভিড (COVID-19)গ্রাফ নিম্নমুখী। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় (Coronavirus) আক্রান্ত ১৩ হাজার ৫৯৬ জন। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের ধারাবাহিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৩০ দিনের মধ্যে এই সংক্রমণ সবচেয়ে কম। কমেছে  অ্যাকটিভ কেসও (Active cases)। এই মুহূর্তে দেশে অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ২ লক্ষেরও কম। তবে সবচেয়ে স্বস্তির খবর, দেশে মহামারী থাবা বসানোর পর সবচেয়ে বিধ্বস্ত শহর মুম্বইয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু শূন্য। 

Advertisement

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৪০ লক্ষ ৮১ হাজার ৩১৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার বলি ১৬৬ জন। আর একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৯ হাজার ৫৮২ জন। এ নিয়ে দেশে মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সুস্থ ব্যক্তির সংখ্য়া ৩ কোটি ৩৪ লক্ষ ৩৯ হাজার ৩৩১। এই মুহূর্তে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ৮৯ হাজার ৬৯৪ জন। যা কোভিড গ্রাফে বড়সড় স্বস্তি বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সবচেয়ে বেশি স্বস্তি দিয়েছে মৃত্যুশূন্য মুম্বই।

[আরও পড়ুন: কোভিড মোকাবিলায় ভারতে বুস্টার ডোজ চালুর সুপারিশ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার, দোটানায় কেন্দ্র]

নবরাত্রি, দুর্গাপুজো সবে মিটেছে। আশঙ্কা ছিল, উৎসব পালন করতে গিয়ে জমায়েত, ভিড়ে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে। তবে তা এড়াতে কড়া বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছিল দেশজুড়ে। বিভিন্ন রাজ্যেও পৃথকভাবে জারি ছিল কোভিডবিধি। আর সেসবেরই সুফল মিলল। সংক্রমণ বৃদ্ধি নয়, বরং করোনাযুদ্ধে আরও খানিকটা এগিয়ে গেল দেশ। 

[আরও পড়ুন: জ্বর সারাতে একরত্তির শরীরে গরম ইস্ত্রির ছ্যাঁকা তান্ত্রিকের! রাজস্থানে গুরুতর আহত ৭ মাসের শিশু]

সামনে আবার দীপাবলি-সহ একাধিক উৎসব রয়েছে। তার আগে দ্রুতহারে টিকাকরণের (Corona vaccine) কাজ চলছে। চলতি বছরের মধ্যে সব দেশবাসীকে টিকার আওতায় আনার লক্ষ্যে এগোচ্ছে কেন্দ্র। এর মধ্যে আবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) ভারতের মতো দেশগুলির জন্য বুস্টার ডোজের সুপারিশ করেছে। বলা হয়েছে, যাঁদের কোমর্বিডিটি রয়েছে, তাঁদের ডবল ডোজের পরও বুস্টার ডোজ প্রয়োজন। যদিও এই সুপারিশ কার্যকর করতে হলে কেন্দ্রীয় নীতির পরিবর্তন দরকার। তাই আগে দুটি ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ সম্পূর্ণ করতে চায় কেন্দ্র। 

Advertisement
Next