দিল্লির হিংসার ‘মাস্টার মাইন্ড’সেই তাহির হোসেন, চার্জশিটে জানাল পুলিশ

06:25 PM Jun 03, 2020 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লি হিংসায় সাসপেন্ড হওয়া কাউন্সিলর তাহির হোসেনের ঘাড়েই দোষ চাপাল পুলিশ। আদালতে জমা দেওয়া চার্জশিটে এমনই দাবি করেছে দিল্লির পুলিশ। চার্জশিটে আইবি (IB) কর্মী অঙ্কিত শর্মাকে খুনের মূল চক্রী হিসেবে তাহিরের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বুধবার দিল্লির কড়কড়ডুমা আদালতে এই মামলায় মোট ১,০৩০ পাতার চার্জশিট দেয় পুলিশ। তাহির-সহ এই মামলায় এ পর্যন্ত ১৫ জন গ্রেপ্তার হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তাহিরের ভাই শাহ আলমও ওই মামলায় ধৃত।

Advertisement

প্রসঙ্গত, ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে CAA ও NRC বিরোধী আন্দোলন চলছিল দিল্লিতে। সেখান থেকে পূর্ব দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় হিংসা ছড়িয়ে পড়ে। আগুন জ্বলে রাজধানীতে। সেই পরিস্থিতি সামাল দিকে কার্যত নাকানিচোবানি খেতে হয়েছিল কেন্দ্র ও দিল্লির সরকারকে। প্রাণ হারান বহু সাধারণ মানুষ। প্রায় মাস চারেক বাদে সেই মামলার চার্জশিট জমা পড়ল আদালতে। আর তাতে অন্যতম মূলচক্রী হিসেবে তাহিরকেই দায়ী করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন : কেরলে গর্ভবতী হাতি খুনের ঘটনায় গর্জে উঠলেন মন্ত্রী-নেটিজেনরা, অবশেষে দায়ের FIR]

চার্জশিটে বলা হয়েছে, উত্তর-পূর্ব দিল্লির চাঁদবাগের হিংসায় তাহিরই ‘কেন্দ্রীয় ভূমিকা’ নিয়েছিল।প্রসঙ্গত উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে হিংসা চালাকালীন আইবি অফিসার অঙ্কিত শর্মাকে হত্যা করার অভিযোগ ওঠে তাহিরের বিরুদ্ধে। আইবি অফিসারকে খুনের অভিযোগে গত মার্চে গ্রেপ্তার হয় সে। এরপরই আপ থেকে সাসপেন্ড করা হয় এই নেতাকে। নগর ও দায়রা আদালতে আগাম জামিনের আরজি জানালেও তা খারিজ হয়ে যায়।

অঙ্কিতকে খুনের পিছনে গভীর ষড়যন্ত্র ছিল বলে দাবি করেছে দিল্লি পুলিশ। এমনকী, তাহির হোসেনের নেতৃত্বাধীন উন্মত্ত জনতাই কুপিয়ে অঙ্কিতকে খুন করেছে বলে চার্জশিটে উল্লেখ করেছে। তাহিরের বাড়ির বাইরের নর্দমা থেকে দেহ উদ্ধার হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। এই খুনে ব্যবহৃত ছুরি ও খুনির পোশাকও উদ্ধার করেছে পুলিশ। ছুরি ও পোশাকে লেগে থাকা রক্তের সঙ্গে অঙ্কিত শর্মার রক্তের নমুনা মিলিয়ে দেখা হয়েছে।

[আরও পড়ুন : বাইক কিনতে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টার দিয়ে স্ত্রীকে বিক্রির চেষ্টা, হাজতে যুবক]

The post দিল্লির হিংসার ‘মাস্টার মাইন্ড’ সেই তাহির হোসেন, চার্জশিটে জানাল পুলিশ appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next