পরনে লাল পাড় সাদা শাড়ি-মুখে রবীন্দ্রনাথের কবিতা, বাজেটে বাঙালি আবেগ ছোঁয়ার চেষ্টা নির্মলার

01:47 PM Feb 01, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শিয়রে বিধানসভা নির্বাচন (Assembly Election 2021)। বাংলার মসনদে কে বসবে, তা নিয়ে চলছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। এবার বিজেপির পাখির চোখ বাংলা। এই আবহে সাধারণ বাজেট পেশেও বাঙালিয়ানার ছোঁয়া। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ পরলেন লাল পাড়ের সাদা শাড়ি। বাজেট পেশের শুরুতেই আবৃত্তি করলেন রবীন্দ্রনাথের কবিতা।

Advertisement

বাঙালি তণ্বীরা শাড়ি সাধারণত একটু বেশিই পছন্দ করেন। তা বলে যে কোনও অনুষ্ঠানে কোনও একটি শাড়ি পরে নিলেই চলবে না। বিয়েবাড়ি হোক কিংবা দুপুরের কোনও অনুষ্ঠান আবার ধর্মীয় অনুষ্ঠান অথবা শ্রাদ্ধানুষ্ঠান- পৃথক পৃথক অনুষ্ঠানে শাড়িও ভিন্ন রকমের। সাধারণত যে কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে বাঙালি মহিলারা চোখ বন্ধ করে লালপাড়ের সাদা শাড়িই বেছে নেন। এটাকে ঐতিহ্য হিসাবে মেনে চলেন তাঁরা।

[আরও পড়ুন: বিমাক্ষেত্রে ৭৪ শতাংশ বিদেশি বিনিয়োগে ছাড়পত্র, LIC’র শেয়ার মিলবে খোলা বাজারে]

বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক দোরগোড়ায় বাজেট (Budget) পেশের ক্ষেত্রেও বাঙালির মন ছুঁতে নির্মলার পরনে ছিল লাল পাড়ের সাদা শাড়ি। সাধারণত কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর সিল্কের শাড়িই বেশি পছন্দ। ঊজ্জ্বল রঙের শাড়িই পরতে দেখা যায় তাঁকে। এর ঠিক আগের বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে সরস্বতী পুজোর মাত্র কয়েকদিন আগে ছিল বাজেট। সে বছর হলুদ রঙের শাড়ি পরে বাজেট পাঠ করতে দেখা গিয়েছিল অর্থমন্ত্রীকে।

Advertising
Advertising

তার আগের বছর সোনালি জরির পাড়ওয়ালা গোলাপি রঙের শাড়ি পরেই পাঠ করেছিলেন বাজেট।

তবে উল্লেখযোগ্যভাবে এই প্রথমবারই লাল পাড়ের সাদা শাড়িতে দেখা গেল নির্মলাকে (Nirmala Sitharaman)। এছাড়াও বাজেট পাঠের শুরুতেই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা কবিতা পাঠ করতেও শোনা গিয়েছে তাঁকে।

এর আগে দুর্গাপুজোর উদ্বোধনের সময়ও একেবারে বাঙালি বেশে ধরা দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। সম্প্রতি রাজ্যে এসেও বাংলায় কথা বলতে শোনা গিয়েছে তাঁকে। বাংলা ভাষায় বারবার টুইট করতে দেখা গিয়েছে মোদি এবং অমিত শাহকে (Amit Shah)। মনীষীদের নিয়ে কথাবার্তা তো রয়েছেই। বিজেপি বাঙালি আবেগকে উসকে দিতেই এসব করছে বলেই অভিযোগ তৃণমূলের। বাংলার সংস্কৃতি সম্পর্কে গেরুয়া শিবির কিছুই জানে না বলেও দাবি। যদিও সেকথা কানে নিতে নারাজ পদ্মশিবির।

[আরও পড়ুন: ভোটের আগে বাংলার জন্য কল্পতরু নির্মলা, এ রাজ্যের রাস্তার জন্য বরাদ্দ ২৫ হাজার কোটি]

Advertisement
Next