Advertisement

কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, টুইটে মমতার প্রশংসা লুইজিনহোর

03:57 PM Sep 27, 2021 |

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: সর্বভারতীয় স্তরে শক্তি বাড়াচ্ছে তৃণমূল। অসম, ত্রিপুরা, উত্তরপ্রদেশের পর গোয়ায় (Goa) সংগঠন মজবুত করতে তৎপর হয়েছে ঘাসফুল শিবির। দলীয় সূত্রে খবর, এবার গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা লুইজিনহো ফালেইরো (Goa Congress leader Luizinho Faleiro) তৃণমূলে যোগ দিতে চলেছেন। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার কলকাতায় আসবেন তিনি। বুধবার যোগ দিতে পারেন তৃণমূলে। এদিকে সোমবারই মমতার (Mamata Banerjee) প্রশংসা করে কংগ্রেস ছেড়েছেন তিনি।

Advertisement

দিনকয়েক ধরেই তৃণমূলের (TMC) সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। এবার তৃণমূল নেত্রীর প্রশংসা করে দল ছাড়লেন লুইজিনহো। এদিন সকালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন কংগ্রেস নেতা। বলেন, “নরেন্দ্র মোদিকে কড়া চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার ফর্মুলা বাংলায় জিতে গিয়েছে।” এর পরই কংগ্রেসের সদস্যপদ থেকে ইস্তফা দেন তিনি। যদিও দলবদল নিয়ে জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন ফালেইরো।

[আরও পড়ুন: কিষাণ মোর্চার ডাকা ‘ভারত বন্‌ধে’ মর্মান্তিক ঘটনা, দিল্লিতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু কৃষকের]

যদিও তৃণমূলনেত্রীর প্রশংসা করে তিনি বলেছিলেন, “৪০ বছর ধরে আমি কংগ্রেস করছি। ভবিষ্যতেও কংগ্রেস পরিবারেই থাকব। বর্তমানে যে চারটি কংগ্রেস ঘরানার দল রয়েছে, তার মধ্যে একমাত্র তৃণমূলই বিজেপির বিরুদ্ধে কঠিন লড়াই করছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছে।” তিনি আরও বলেন, “মোদি বাংলায় ২০০টি সভা করেছেন, অমিত শাহ করেছেন ২৫০ টি সভা। এর পর এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট, সিবিআই তো ছিলই। তার পরেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জিতে গিয়েছেন।” 

 

[আরও পড়ুন: PM Modi: দেশের সবাই ডিজিটাল হেল্থ কার্ড পাবেন, ঘোষণা প্রধানমন্ত্রী মোদির]

তৃণমূল নেত্রীকে লড়াকু বলে উল্লেখ করে ফালেইরো বলেন, “বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হলে এরকম লড়াকু নেত্রীই প্রয়োজন। যাদের নীতি, চিন্তাভাবনা, কর্মসূচি একই ধরনের। আর তাই কংগ্রেসের মতো একইরকম মানসিকতার দলগুলির একজোট হওয়া প্রয়োজন।” তাঁর মন্তব্য থেকে এটা স্পষ্ট যে গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর দলবদল স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। আর সেটা হলে, অসমের প্রাক্তন কংগ্রেস নেত্রী সুস্মিতা দেবের পর আরও এক জাতীয়স্তরের নেতাকে নিজেদের দিকে টেনে শক্তি বাড়িয়ে নেবে তৃণমূল।

Advertisement
Next