Advertisement

প্রকৃত হিন্দু মনে করেন প্রত্যেক ভারতীয়র DNA আলাদা, ভাগবতকে জবাব রাহুল গান্ধীর

11:43 AM Dec 20, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শনিবার ধরমশালায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ (RSS) প্রধান মোহন ভাগবত (Mohan Bhagwat) বলেন, ৪০ হাজার বছর ধরে প্রত্যেক ভারতীয়র শরীরে রয়েছে একই ডিএনএ (DNA)। রবিবার ভাগবতের এই বক্তব্য খণ্ডন করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। এদিন তিনি বলেন, প্রকৃত হিন্দুরা মনে করেন প্রত্যেক ভারতীয়র ডিনিএ আলাদা, হিন্দুত্ববাদীরা মনে করেন সব ভারতীয়র ডিএনএ এক।

Advertisement

শনিবার ধরমশালায় প্রাক্তন ভারতীয় সেনাদের একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সংঘ প্রধান ভাগবত। সেখানে তিনি বলেন, “গত ৪০ হাজার বছরে ভারতীয়দের ডিএনএ-তে কোনও পরিবর্তন হয়নি। আমাদের পূর্বপুরুষরা অভিন্ন। ওই পূর্বপুরুষদের কারণেই আমাদের সংস্কৃতির বিকাশ অব্যাহত রয়েছে। তাঁদের ও আজকের ভারতীয়দের মধ্যে কোনও তফাত নেই।”

[আরও পড়ুন: ৪০ হাজার বছর ধরে সব ভারতীয়র DNA এক, দাবি ভাগবতের]

রবিবার টুইটারের সঙ্গে কথা বলার সময় ভাগবতের এই বক্তব্যই খণ্ডন করলেন রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, “একজন প্রকৃত হিন্দু মনে করেন প্রত্যেক ভারতীয় ডিএনএ আলাদা এবং স্বতন্ত্র। হিন্দুত্ববাদীরা মনে করেন, সব ভারতীয়র ডিএনএ এক।” সাম্প্রতিককালে একাধিক বক্তৃতায় প্রকৃত হিন্দু ও হিন্দুত্ববাদী বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা। শনিবারও বলেন, “একজন হিন্দুত্ববাদীকে এভাবে ব্যাখ্যা করা যায়, যেমন একজন মানুষ একাই গঙ্গাস্নান করছেন, অপরপক্ষে একজন প্রকৃত হিন্দু অসংখ্য মানুষের সঙ্গে পবিত্র গঙ্গাস্নানের আনন্দে অংশ নেন।” সম্প্রতি আমেঠি লোকসভার জগদিশপুরের সভায় রাহুল বলেন, “প্রকৃত হিন্দু সত্যের পথে যাত্রা করেন, কখনই ক্রোধ, ঘৃণা বা হিংসার বশবর্তী হয়ে কোনও কাজ করেন না।”

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ‘হিন্দুত্ববাদীদের সরিয়ে দেশে প্রকৃত হিন্দুদের শাসন প্রতিষ্ঠা করুন’, আহ্বান রাহুল গান্ধীর]

এদিকে রাহুল গান্ধীর হিন্দু ও হিন্দুত্ববাদীর ব্যাখ্যা নিয়ে কটাক্ষ করেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ (Vishwa Hindu Parishad)। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কার্যকরী সভাপতি অলোক কুমার বলেন, “আসলে কংগ্রেস তাদের রাজনৈতিক পথ গুলিয়ে ফেলেছে। এখন রাহুল গান্ধী হিন্দু হওয়ার ভান করছেন। কিন্তু একটা ভুল করছেন। উনি নিজেকে হিন্দু বলছেন কিন্তু হিন্দুত্বে বিশ্বাস করেন না বলেও জানাচ্ছেন। এটা অনেকটা এমন, একজন মানুষ যিনি মনুষত্বে বিশ্বাস করেন না।” 

Advertisement
Next