করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যেই RT-PCR টেস্ট নিয়ে নয়া নির্দেশিকা কেন্দ্রের

11:21 AM May 05, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে হু হু করে বাড়ছে করোনা (Covid-19) আক্রান্তের সংখ্যা। আর এর জেরে প্যাথোলজি ল্যাবরেটরিগুলির উপর করোনা পরীক্ষার চাপও বিপুল পরিমাণে বেড়েছে। এই পরিস্থিতি সামাল দিতে RT-PCR পরীক্ষার ব্যাপারে নতুন নির্দেশিকা জারি করল কেন্দ্র। সেখানে জানানো হয়েছে, এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যাওয়া ‘সুস্থ’ ভ্রমণকারী এবং হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়া কোভিড রোগীর আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করার প্রয়োজন নেই। মূলত আইসিএমআর-এর সুপারিশ মেনেই নয়া এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

Advertisement

মঙ্গলবার রাতে রাজ্যগুলিকে পাঠানো কেন্দ্রের নয়া নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ বাড়ছে দেশে। ফলে দেশের আড়াই হাজারেরও বেশি কোভিড পরীক্ষা কেন্দ্রের উপর বিপুল চাপ তৈরি হয়েছে। তা কমাতেই এই বিধিনিষেধ। নির্দেশিকা অনুযায়ী, আন্তঃরাজ্য ভ্রমণকারী অর্থাৎ এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যাওয়ার সময় যাঁদের শরীরে কোনও করোনার উপসর্গ নেই, একদম সুস্থ সেই সমস্ত ব্যক্তিদের আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করানোর দরকার নেই। এছাড়া কোভিডে আক্রান্ত হয়ে যাঁরা হাসপাতালে ভরতি, সুস্থ হয়ে ফেরার সময় তাঁদেরও টেস্ট পরীক্ষা করানোর প্রয়োজন নেই। পাশপাশি র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট বা গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড আরটি-পিসিআর পরীক্ষায় পর, যাঁদের রিপোর্ট এক বার পজিটিভ এসেছে তাঁদেরও আর পরীক্ষা করতে হবে না।

[আরও পড়ুন: টানা দ্বিতীয় দিন, ভোট শেষ হতেই ফের ঊর্ধ্বমুখী পেট্রল-ডিজেলের মূল্য]

Advertising
Advertising

এখানেই শেষ নয়, কোভিড লক্ষণ রয়েছে এমন ব্যক্তিদের অপ্রয়োজনীয় কারণে ভ্রমণ থেকে বিরত থাকার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। তবে যাঁদের যাতায়াতের প্রয়োজন এমন ব্যক্তির শরীরে কোভিডের উপসর্গ থাকলে তাঁর আরটি-পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক। এদিকে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ৪ মে পর্যন্ত দেশে মোট টেস্ট হয়েছে ২৯ কোটি ৪৮ লক্ষ ৫২ হাজার ৭৮টি। এর মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড পরীক্ষা হয়েছে ১৫ লক্ষ ৪১ হাজার ২৯৯টি।

প্রসঙ্গত, কোভিডে আক্রান্ত কি না তা জানার অন্যতম নির্ভরযোগ্য পরীক্ষা পদ্ধতি হল আরটি-পিসিআর। এ ছাড়াও কয়েকটি চলতি পদ্ধতি রয়েছে। এর মধ্যে আরটি-পিসিআর পরীক্ষার ফল আসতে সময় লাগে বেশি। করোনা সংক্রমণ যে রাজ্যে বেশি হচ্ছে, সেখানে এই পরীক্ষার ফল পেতে আরও সময় লেগে যাচ্ছে। অনেক মানুষ সময়ে পরীক্ষাও করাতে পারছেন না। সেই পরিস্থিতি এড়ানোর জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

[আরও পড়ুন: ‘অক্সিজেনের অভাবে করোনা রোগীদের মৃত্যু গণহত্যার শামিল’, যোগী প্রশাসনকে ভর্ৎসনা আদালতের]

Advertisement
Next