Advertisement

একের পর এক বিধায়কের ইস্তফা, আরও এক রাজ্যে পতনের মুখে কংগ্রেস সরকার!

03:43 PM Feb 16, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সামনেই নির্বাচন। দু’সপ্তাহের মধ্যেই নির্বাচন কমিশন (Election Commission) দিনক্ষণও ঘোষণা করে দেবে। এরই মধ্যে পুদুচেরিতে বড়সড় ধাক্কা খেল কংগ্রেস। একের পর এক বিধায়কের ইস্তফার জেরে এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটিতেও সংখ্যালঘু হয়ে গেল কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ (UPA) সরকার। পরিস্থিতি এমনই যে, ভোটের মাত্র কয়েকদিন আগে পদত্যাগ করতে হতে পারে মুখ্যমন্ত্রী ভি নারায়ণস্বামীকে।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

এই মুহূর্তে গোটা দেশের মাত্র চার রাজ্যে আছেন কংগ্রেসী মুখ্যমন্ত্রী। তার মধ্যেই একটি ছিল পুদুচেরি। ২০১৬ নির্বাচনে ৩০ আসনের পুদুচেরি বিধানসভায় ১৫টি আসন জিতেছিল কংগ্রেস। সেসময় জোটসঙ্গী ডিএমকের (DMK) দুই বিধায়ক এবং এক নির্দল বিধায়কের সমর্থনে সরকার গড়ে কংগ্রেস (Congress)। মুখ্যমন্ত্রী হন ভি নারায়ণস্বামী। বিরোধী দল অল ইন্ডিয়া এন আর কংগ্রেস পায় ৮টি আসন। এআইএডিএমকে (AIADMK) জেতে ৪টি আসন। এমনিতে পুদুচেরিতে কোনওক্রমে সরকার চালাচ্ছিল কংগ্রেস। কিন্তু মঙ্গলবার একসঙ্গে একাধিক বিধায়কের ইস্তফায় সরকার সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়ে ফেলেছে। সোমবার সকালেও এক বিধায়ক পদত্যাগ করেছেন। ফলে ৩০ আসনের বিধানসভায় সরকার পক্ষের বিধায়ক সংখ্যা দশেরও নিচে নেমে গিয়েছে। অন্যদিকে বিরোধী শিবিরে এখনও রয়েছেন ১৪ জন বিধায়ক। বেগতিক দেখে তড়িঘড়ি মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী নারায়ণস্বামী। সূত্রের খবর, এই বৈঠক শেষে সরকার ভেঙে দিয়ে পদত্যাগও করতে পারেন তিনি। নির্বাচনের আগে যা কিনা বড় ধাক্কা হবে কংগ্রেসের জন্য। সামনেই পুদুচেরিতে ভোটপ্রচারে যাওয়ার কথা রাহুল গান্ধীর (Rahul Gandhi)। তার ঠিক আগেই বিধায়কদের এই পদত্যাগ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে কংগ্রেস শিবিরের।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: প্যাংগং হ্রদ থেকে ফৌজ সরাচ্ছে চিন, ভিডিও প্রকাশ করে প্রমাণ দিল ভারতীয় সেনা]

এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটিতে এতদিন পর্যন্ত সেভাবে প্রভাব ছিল না বিজেপির (BJP)। কিন্তু ২০১৬ সালে এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটিতেও নজর পড়ে গেরুয়া শিবিরের। উপরাজ্যপাল হিসেবে সেখানে পাঠানো হয় কিরণ বেদীকে। তারপর থেকেই পুদুচেরি বারবার শিরোনামে এসেছে মুখ্যমন্ত্রী-উপরাজ্যপাল বিবাদের কারণে। একাধিকবার রাজভবনে গিয়ে ধরনা দিতেও দেখা গিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী নারায়ণস্বামীকে। কংগ্রেসের অভিযোগ, কিরণ বেদী এবং বিজেপির ষড়যন্ত্রেই কংগ্রেস বিধায়করা পদত্যাগ করছেন।তবে, ওই পদত্যাগীরা কোন দলে যোগ দেবেন তা এখনও স্পষ্ট নয়। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next