‘ধর্ষণের ফলে জন্মানো শিশু আজীবনের খারাপ স্মৃতি’, নাবালিকাকে গর্ভপাতের অনুমতি আদালতের

02:54 PM Dec 01, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটা ডেস্ক: ধর্ষণের ফলে জন্ম নেওয়া শিশুটি আজীবন একটি খারাপ ঘটনার স্মৃতি বহন করবে, যা মাকে মানসিক কষ্ট দেবে। এই যুক্তিতেই ২৬ সপ্তাহের অন্তঃস্বত্ত্বা নাবালিকাকে গর্ভভাতের অনুমতি দিল পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাই কোর্ট (Punjab Haryana High Court) । এইসঙ্গে সরকারি হাসপাতালের মেডিকেল চিকিৎসকদের নাবালিকার অস্ত্রোপচার ও পরবর্তী চিকিৎসার বিষয়ে যাবতীয় নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

ধর্ষিতা নাবালিকার হয়ে তার বাবা পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাই কোর্টে মামলা করেন। নাবালিকা ২৬ সপ্তাহের অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়া সত্বেও গর্ভপাতের জন্য আবেদন করেন। ওই আবেদনে জানানো হয়, ধর্ষণের ফলে গর্ভবতী হয়েছে নাবালিকা। সে এখনও আতঙ্কে ভুগছে। মাঝমাঝে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। সন্তান জন্মালেও তাকে লালনপালন করার ক্ষমতা নেই নাবালিকার। এই অবস্থায় ২৬ সপ্তাহ অতিক্রান্ত হলেও তাকে গর্ভপাতের অনুমতি দেওয়া হোক। শুনানিতে নাবালিকার পক্ষের যুক্তির সঙ্গে একমত হন বিচারপতি এস ভরদ্বাজের বেঞ্চ।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: জিএসটি-তে অনীহা গুজরাটের ব্যবসায়ীদেরই, সমস্যায় ক্রেতা, বিক্রেতারা]

বিচারপতি ভরদ্বাজ উল্লেখ করেন, নির্যাতিতা নাবালিকা এখনও পরিবারের উপর নির্ভরশীল। এখনও পড়াশুনা শেষ করতে পারেনি। জীবনের লক্ষ্য পূরণ থেকে বহু দূরে। বিচারপতি ভরদ্বাজ একমত হন যে একটি ‘দুর্ঘটনায়’ গর্ভবতী হয়েছে সে। এরপর বিচারপতি বলেন, “জন্মালেও শিশুটি অবাঞ্ছিত স্মৃতি বহন করবে। মানসিক যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে মা ও শিশুকে। এইসঙ্গে নাবালিকাকে সামাজিক কলঙ্ক বহন করতে হবে। তাছাড়া মা তার পরিবার সন্তান প্রতিপালনের বিষয়ে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছে। এই অবস্থায় অবাঞ্ছিত শিশুটির জন্মগ্রহণ ভাল হবে না।”

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুতে পড়ুয়াদের ব্যাগে কন্ডোম, জন্মনিয়ন্ত্রক বড়ি! হতবাক শিক্ষক ও অভিভাবকরা]

সব দিক খতিয়ে দেখে ২৪ সপ্তাহ অতিক্রান্ত হলেও নাবালিকাকে গর্ভাপাতের অনুমতি দিয়েছে পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাই কোর্ট। আদালত মেওয়াটের শহিদ হাসান খান মেওয়াতি সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালককে গর্ভাপাতের বিষয়ে যাবতীয় দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছে। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে একটি রায়ে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court) জানায়, দেশের সব মহিলা নিরাপদ এবং আইনি গর্ভপাতের অধিকারী, এই বিষয়ে বিবাহিত এবং অবিবাহিত মহিলার মধ্যে পার্থক্য করা অসাংবিধানিক। একজন নারী বিয়ে করেছেন কী করেননি, তার উপর ভিত্তি করে তাঁকে গর্ভপাতের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা যায় না। ২০ থেকে ২৪ সপ্তাহের মধ্যে বিবাহিতদের মতোই একজন অবিবাহিত মহিলাও গর্ভপাত করাতে পারবেন।তবে এক্ষেত্রে ‘স্পেশাল কেস’ হিসেবে ২৬ সপ্তাহে গর্ভপাতের অনুমতি দেওয়া হল।

Advertisement
Next