Advertisement

‘মাতঙ্গিনী এখানে কখনও আন্দোলন করতে আসেননি’, PM Modi-র বেফাঁস মন্তব্যের পালটা সায়নীর

04:35 PM Aug 16, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসে ভাষণ দিতে গিয়েই বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। তমলুকের বীরাঙ্গনা মাতঙ্গিনী হাজরা অসমের বলে উল্লেখ করেছিলেন। তাঁর সেই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছিলেন বিরোধীরা। এবার সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের (Srijit Mukherji) সিরিজের পোস্টারের আদলে তৈরি ছবি শেয়ার করে প্রধানমন্ত্রীকে বিঁধলেন যুব তৃণমূলের সভাপতি সায়নী ঘোষ (Saayoni Ghosh)।

Advertisement

কিছুদিন আগেই হইচই প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে সৃজিত মুখোপাধ্যায় পরিচালিত সিরিজ ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি’ (Robindronath Ekhane Kawkhono Khete Aashenni)। সেই সিরিজের পোস্টার ফটোশপ করে তাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবি বসানো হয়েছে। পোস্টারের উপরে লেখা হয়েছে, ‘মাতঙ্গিনী এখানে কোনও আন্দোলন করতে আসেননি’। পোস্টারের ক্যাপশনে সায়নী লিখেছেন, “হোয়াটসঅ্যাপ থেকে শেয়ার করা, একটু বাংলায় ব্যঙ্গ করা!”

[আরও পড়ুন: Indian Idol 12: বনগাঁর মেয়ে অরুণিতাকে হারিয়ে সেরা উত্তরাখণ্ডের পবনদীপ! ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা]

উল্লেখ্য, ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী এক মহান বিপ্লবী নেত্রী মাতঙ্গিনী হাজরা (Matangini Hazra)। ‘গান্ধীবুড়ি’ নামে পরিচিত ছিলেন তিনি। ১৯৪২ খ্রিস্টাব্দের ২৯ সেপ্টেম্বর তদনীন্তন মেদিনীপুর জেলার তমলুক থানার সামনে ব্রিটিশ ভারতীয় পুলিশের গুলিতে তিনি শহিদ হয়েছিলেন মাতঙ্গিনী হাজরা।

৭৫তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মহিলাদের স্মরণ করছিলেন প্রধানমন্ত্রী। ঝাঁসির রানি লক্ষ্মীবাঈ-সহ একাধিক মহিলা যোদ্ধাকে সম্মান জানান তিনি। বিভিন্ন রাজ্যের বীরাঙ্গনাদের নামের পাশাপাশি উচ্চারিত হয় তমলুকের মাতঙ্গিনী হাজরার নাম। কিন্তু তাঁকে বাংলার স্বাধীনতা যোদ্ধা হিসেবে পরিচয় দেওয়ার বদলে অসমের (Assam) বীরাঙ্গনা বলে দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী। এতেই তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এমন মন্তব্যের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে বলে দাবি করেছেন তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। সোমবারই ত্রিপুরা গিয়েছেন সায়নী। তার আগেই টুইটারে প্রধানমন্ত্রীকে এই টুইটের মাধ্যমে বিঁধেছেন যুব তৃণমূলের সভাপতি।

[আরও পড়ুন: ‘Kabul’কে বাঁচান’, মহিলা পরিচালকের কাতর আরজি ফেসবুকে শেয়ার করলেন Sreelekha-Anik]

Advertisement
Next