Tathagata Roy vs Dilip Ghosh: ‘তরজা নয়, লড়াইতে আছি’, তথাগত রায়ের কটাক্ষের পালটা দিলীপ ঘোষের

09:20 AM Nov 14, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বর্ষীয়ান নেতা তথাগত রায়ের (Tathagata Roy) একের পর এক টুইট বিস্ফোরণের জেরে অস্বস্তিতে পদ্ম শিবির। তুঙ্গে দিলীপ ঘোষ এবং তথাগত রায়ের তরজা। শনিবারই টুইট করে দিলীপ ঘোষ ‘দাবার অসহায় ঘুঁটি’ বলেই উল্লেখ করে সহমর্মিতা প্রকাশ করেছিলেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা। তবে পালটা তরজায় রাজি নন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1636631944499-0'); });
googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1636626711705-0'); });

শনিবার টুইটে ঠিক কী লেখেন তথাগত রায়? তিনি টুইটে লেখেন, “যত বেশি জানতে পারছি দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) প্রতি আমার সহমর্মিতা ততই বাড়ছে। কেন্দ্রীয় নেতারা তাঁকে কার্যত দাবার অসহায় ঘুঁটিতে পরিণত করেছিল। দিলীপও তাই বলেছেন। ক্রমশই বিজেপির আত্মহননের কারণ সামনে আসছে।” টুইটে আরও একবার ‘কেএসএ’ টিমের কথা উল্লেখ করেন তিনি। বিজেপি সূত্রে খবর, ‘কেএসএ’ বলতে এ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিবপ্রকাশ এবং অরবিন্দ মেননকেই বোঝান তথাগত রায়। উল্লেখ্য, এর আগে কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে ‘ঘৃণা’ করেন বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন তথাগত রায়।   

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1636632304136-0'); });
googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1636626774667-0'); });

[আরও পড়ুন: গালিগালাজ সহ্য করতে না পেরে বাবাকে পিটিয়ে খুন মেয়ের! তীব্র চাঞ্চল্য উত্তরপাড়ায়]

শনিবার এই ঘটনায় মুখ খুলতে রাজি হননি দিলীপ ঘোষ। রবিবার সকালে যদিও সে প্রসঙ্গে মুখ খুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি। তরজায় রাজি নন বলে উল্লেখ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, “তরজা নয়, লড়াইতে আছি। ইনডোর ম্যাচ নয় আউটডোর গেম খেলি।” রাজনৈতিক মহলের মতে, দিলীপ ঘোষ এবং তথাগত রায়ের সম্পর্ক যে ক্রমশ তলানিতে ঢেকেছে তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। 

Advertising
Advertising

সাম্প্রতিককালে একাধিকবার বিজেপির বিরুদ্ধে টুইটে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তথাগত রায়। দল ছাড়লে অনেক গুপ্তকথা ফাঁস করে দেবেন বলে টুইটে উল্লেখ করেন। স্বেচ্ছায় যে তিনি বিজেপি ছাড়ছেন না, তা স্পষ্ট করে দেন। বলেন, দল ছাড়তে পারলে অনেকের অনেক গোপন কীর্তিই তিনি ফাঁস করে দেবেন। অর্থ এবং নারীর চক্র থেকে বিজেপিকে বের করে আনা প্রয়োজন বলেও টুইটে দাবি করেন বর্ষীয়ান নেতা। যা নিয়ে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়ে গেরুয়া শিবির। আইনি বিপাকে পড়েন তথাগত রায়। তাঁর বিরুদ্ধে FIR-ও দায়ের হয়।

[আরও পড়ুন: সাবধান! হোয়াটসঅ্যাপে নতুন ফাঁদ হ্যাকারদের, অসাবধান হলেই হবেন সর্বস্বান্ত]

Advertisement
Next