Jagdeep Dhankhar-এর সঙ্গে বিধানসভার স্পিকারের সাক্ষাতের সম্ভাবনা, কারণ নিয়ে জোর চর্চা

03:02 PM Jul 23, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মুখোমুখি সাক্ষাৎ হতে চলেছে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় (Jagdeep Dhankhar) এবং বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Biman Banerjee)। শুক্রবার বিকেল চারটে নাগাদ তাঁদের দেখা হওয়ার কথা। সেকথা নিজেই টুইটে জানিয়েছেন বাংলার রাজ্যপাল। ঠিক কী কারণে দু’জনের সাক্ষাৎ হতে চলেছে, তা নিয়ে মাথাচাড়া দিয়েছে নয়া জল্পনা।

Advertisement

দিনকয়েক আগে নবান্ন (Nabanna) থেকে ফেরার পথে আচমকাই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) যাত্রাপথ বদল করে রাজভবনে যান। বেশ কিছুক্ষণ রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে কথাও হয় তাঁর। যদিও ঠিক কী বিষয়ে রাজ্যের প্রশাসনিক এবং সাংবিধানিক প্রধানের আলোচনা হয়, সে বিষয়ে কিছুই স্পষ্টভাবে জানা যায়নি।

Advertising
Advertising

আর তারপরই হঠাৎ করে দিল্লি (Delhi) পাড়ি দেন রাজ্যপাল। ভোট পরবর্তী হিংসা (Post Poll Violation) নিয়ে আলোচনা করতে আবারও তিনি রাজধানী সফরে গিয়েছিলেন বলেই সূত্র মারফত জানা গিয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে আবারও শুক্রবার সকালে টুইটে চমক দিলেন রাজ্যপাল। স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আজ বিকেল চারটে নাগাদ ডেকে পাঠিয়েছেন বলেই টুইটে উল্লেখ করেন তিনি। ঠিক কী কারণে হঠাৎ করে বিধানসভার স্পিকারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চলেছেন ধনকড়, তা নিয়ে চলছে জোর চর্চা। 

[আরও পড়ুন: Corona Vaccine: ৬২% নাগরিকের টিকাদান সম্পূর্ণ, রেকর্ড হারে দেশে প্রথম কলকাতা]

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে বাংলার সরকারের সঙ্গে প্রায় প্রতিক্ষেত্রেই সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। প্রথম থেকে আইনশৃঙ্খলা (Law & Order) নিয়ে প্রশ্ন তুলতে থাকেন তিনি। শিক্ষা এবং করোনা কালে স্বাস্থ্যক্ষেত্র নিয়ে একাধিকবার বিরোধিতার সুর চড়ান। কখনও নবান্নে পত্রবোমা পাঠিয়েছেন তো কখনও টুইটেই জানিয়েছেন নিজের অভিমত। এরই মাঝে বিধানসভা নির্বাচনের পর বিপুল ভোটে জিতে তৃতীয়বার রাজ্যে মসনদে বসেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। তারপর থেকে সংঘাত যেন আরও চরমে উঠেছে। ভোট পরবর্তী রাজ্যে একাধিকবার হিংসার অভিযোগ তুলেছেন তিনি। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) এ বিষয়ে তাঁর কাছে অভিযোগও জানিয়েছেন। উত্তরবঙ্গে গিয়ে ভোট পরবর্তী হিংসায় জর্জরিতদের সঙ্গে দেখাও করেছেন তিনি। উল্লেখ্য, গত মাসেই বিধানসভার স্পিকারকে ডেকে পাঠিয়েছিলেন রাজ্যপাল। তাঁর কাজ নিয়ে উষ্মাপ্রকাশ করেছিলেন। বিধানসভার শুরুতে ভাষণ সম্প্রচার বন্ধ নিয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করেন। পরবর্তীকালে PAC চেয়ারম্যান হিসাবে মুকুল রায়ের নাম ঘোষণা নিয়ে শাসক-বিরোধী তরজা চরমে পৌঁছয়। এই প্রেক্ষাপটে স্পিকারকে রাজ্যপালের ডেকে পাঠানো যে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। 

[আরও পড়ুন: টেলি অভিনেত্রীকে লাগাতার ধর্ষণের হুমকি! অবশেষে পুলিশের জালে অভিযুক্ত]

Advertisement
Next