মুম্বই হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ইজরায়েলের, দোষীদের শাস্তির দাবি জেরুজালেমের

02:57 PM Nov 26, 2020 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ছোট্ট মোশের জীবনের গতিপথ পালটে দিয়েছিল ২৬/১১ (Mumbai Attack)। প্রায় এক দশক আগে আজকের দিনে পাকিস্তানি জঙ্গিদের হামলায় রক্তাক্ত হয়েছিল মুম্বই। নরিমান হাউসে পাকিস্তানি জঙ্গিদের গুলিতে মৃত্যু হয়েছিল ছয় ইজরায়েলি নাগরিকের। বাবা-মাকে হারিয়ে অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গিয়েছিল ছোট্ট মোশে হোলৎসবার্গ। বৃহস্পতিবার মুম্বইয়ে নিহত নাগরিকদের শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করল ইজরায়েল (Israel)।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘বিশ্বকে ফের নেতৃত্ব দিতে ফিরে এসেছে আমেরিকা’, বলছেন আত্মবিশ্বাসী জো বিডেন]

জেরুজালেম, রেহভত ও তেল আভিভে মুম্বই হামলায় নিহত নাগরিকদের শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে ভারতীয় ও ইজরায়েলি ছাত্ররা নরিমান হাউসে হামলায় মৃতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। পাশাপাশি, হামলায় অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছে ইজরায়েল। এছাড়া, ইজরায়েলি সময় মতে আজ রাত আটটায় একটি ভারচুয়াল জনসভারও আয়োজন করা হবে। এদিকে, নিহত নাগরিকদের স্মৃতিতে এবার সেদেশে রাস্তার নামকরণের পরিকল্পনা নেওয়া হল। ইজরায়েলের দক্ষিণ উপকূল শহর এইলাতের বাসিন্দারা এই উদ্যোগ নিয়েছেন। আমেরিকায় ৯/১১ হামলায় নিহত নাগরিকদের স্মৃতিতেও একই ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল আমেরিকায়। ২০০৮ সালের হামলায় জঙ্গিদের টার্গেটের মধ্যে অন্যতম ছিল মুম্বইয়ের চাবাদ হাউস বা নরিমান হাউস। যেখানে ইহুদিরা থাকতেন। ওই হামলায় মৃত্যু হয় ১৬৬ জনের। নিহতদের মধ্যে ছ’জন ইহুদি ছিলেন। জঙ্গি হামলায় নিহত ইহুদিদের স্মৃতিতে ইজরায়েলের রাস্তার নামকরণের বিষয়টি মেয়রকে ইতিমধ্যেই জানিয়েছে এইলাতের একটি সংগঠন। তাদের দাবি, বিষয়টি শোনার পর সেই প্রস্তাবে সায় দিয়েছেন মেয়র। এমনকী, তিনি সবরকম সাহায্যের আশ্বাসও দিয়েছেন।

এদিকে, ভারতে ঘটে যাওয়া সমস্ত রকম সন্ত্রাসবাদী হামলার পিছনে যে পাকিস্তানই জড়িত ফের তার প্রমাণ পাওয়া গেল। ২৬/১১ মুম্বই হামলার ১২ বছরপূর্তিতে ভারতবাসী যখন অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে মৃতদের স্মরণ করছে। ঠিক তখনই মুম্বই হামলার ঘটনায় খতম হওয়া ১০ জন লস্কর জঙ্গির স্মৃতিতে প্রার্থনাসভার আয়োজন করার খবর পাওয়া গেল পাকিস্তানে। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরেই এই হামলার পিছনে যে ইসলামাবাদের প্রত্যক্ষ মদত ছিল ফের তা বোঝা গেল।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ‘বিশ্বকে ফের নেতৃত্ব দিতে ফিরে এসেছে আমেরিকা’, বলছেন আত্মবিশ্বাসী জো বিডেন]

Advertisement
Next