কোয়াডে চিনকে হুঁশিয়ারি রাষ্ট্রনেতাদের, বাইডেনের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক নিয়ে উচ্ছ্বসিত মোদি

10:37 AM May 25, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জাপানে (Japan) অনুষ্ঠিত কোয়াড (Quad) বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, জাপানের রাষ্ট্রনেতাদের সঙ্গে বৈঠক সেরে ফেরার পথে টুইট করেন তিনি। এই সফরকে ‘ফলপ্রসূ’ বলে বর্ণনা করেছেন মোদি। এদিকে বৈঠকে চার দেশের তরফেই তীব্র নিন্দা করা হয়েছে চিন ও উত্তর কোরিয়ার।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

মঙ্গলবার রাতেই জাপানি ভাষাতেই টুইট করে সকলকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি লেখেন, ”ফলপ্রসূ এক সফর শেষে ফেরার পথে। বহু দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক বৈঠকে যোগ দিয়েছি। আমরা আনন্দিত যে কোয়াড একটি জীবন্ত মঞ্চ হিসেবে উঠে এসেছে, যা বিশ্বের কল্যাণের কথাই বলে। অংশগ্রহণকারী দেশগুলির নেতাদের সঙ্গে সুন্দর দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়েছে।”

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: প্রকাশ্যেই সাধুর উপর চড়াও যুবক, কেটে নেওয়া হল জটা! ভাইরাল ভিডিও ঘিরে চাঞ্চল্য]

প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চিনের দাপট কম রাখতে তৈরি হয়েছে আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, জাপান এবং ভারত- এই চারটি দেশের জোট কোয়াড (QUAD)। প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চিনের দাপট কমাতেই মূলত এই জোট গঠন করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, এবারের বৈঠকে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের উন্নতি ও উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর জন্য যৌথ উদ্যোগে পরিকাঠামো উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

পাশাপাশি আলোচনা হয়েছে কোভিড মোকাবিলা নিয়েও। মার্কিন রাষ্ট্রপতি বাইডেন ভারতের কোভিড কর্মসূচির ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। পাশাপাশি চিনের কড়া সমালোচনাও করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। সাধারণ ভাবে এই বৈঠকে চিনের তীব্র নিন্দা করতে দেখা গিয়েছে মোদি-সহ চার দেশের রাষ্ট্রনেতাদেরই। একটি যৌথ বিবৃতি পেশ করে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে বেজিংকে। বলা হয়েছে, যদি চিন কোনও উস্কানিমূলক প্রচেষ্টা করে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতিকে বদলাতে তাহলে তার বিরোধিতা করা হবে। পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ার বারবার ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষারও কড়া নিন্দা করেছে চার দেশের জোট।

[আরও পড়ুন: আমেরিকায় প্রাথমিক স্কুলে বন্দুকবাজের হামলা, মৃত ১৯ শিশু-সহ ২১]

এই বৈঠকে ভারতের পক্ষে অন্যতম আকর্ষণীয় বিষয় ছিল আমেরিকার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক। দুই দেশের তরফে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারির কথা ঘোষণাও করা হয়েছে। মোদি ভারত-মার্কিন জোটকে ‘সত্যের জোট’ বলে বর্ণনা করেছেন। সম্প্রতি ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধে ভারত সরাসরি সমর্থন না করেও মস্কোর পাশেই থেকেছে। এই পরিস্থিতিতে কোয়াড বৈঠকে ওয়াশিংটনের সঙ্গেও সুসম্পর্ক বজায় রেখে কূটনৈতিক অবস্থান মজবুত করল ভারত, এমনটাই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Advertisement
Next