Advertisement

আমেরিকার সঙ্গে বন্ধুত্বের দাম দিতে হয়েছে, আফগানিস্তান ইস্যুতে আফশোস ইমরানের

10:39 AM Sep 20, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আফগানিস্তান (Afghanistan) ইস্যুতে আমেরিকার পাশে ছিল পাকিস্তান। আর এই বন্ধুত্বের ‘বিরাট মূল্য’ চোকাতে হয়েছে ইসলামাবাদকে। তা নিয়ে এখন আফশোস করছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান (Pakistan PM Imran Khan)। কিন্তু কেন এমন আফশোস?

Advertisement

সম্প্রতি রাশিয়ার এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেন ইমরান। সেখানেই তিনি এমন মন্তব্য করেছেন। বলেন, “আফগানিস্তানে আমেরিকাকে সঙ্গ দেওয়াই ভুল হয়েছিল। তার জন্য বড় মূল্য চুকিয়েছে পাকিস্তান।” উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই আমেরিকার (America) এক সেনেটর পাকিস্তানের সমালোচনা করেন। বলেন, আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের জন্য পাকিস্তানকেই দায়ী করছিলেন তিনি। এর পালটা ইমরান বলেন, “একজন পাকিস্তানি নাগরিক হিসেবে ওঁর মন্তব্য শুনতে ভাল লাগেনি। আমেরিকার এমন দোষারোপে আমি আহত। নিজেদের ব্যর্থতার দায় অন্যের উপর চাপানোর চেষ্টা করছে ওয়াশিংটন। এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক।”

[আরও পড়ুন: তালিবানের অন্দরে ক্ষমতা দখলের লড়াই, বরাদরকে ঘুসি হাক্কানির, প্রাসাদে গুলিবৃষ্টি]

৯/১১ আমেরিকার জঙ্গিহানার পর কোণঠাসা হয়ে গিয়েছিল পাকিস্তান। নিজের সরকার টিকিয়ে রাখার জন্য আমেরিকার সাহায্য প্রয়োজন ছিল পারভেজ মুশারফের। আমেরিকার সমর্থন আদায় করতে মার্কিনি শর্ত মেনে নেন তিনি। শর্ত ছিল, আফগানিস্তানে মার্কিন সেনাকে সাহায্য করবে পাকিস্তান। তাদের রসদের জোগান দেবে ইসলামাবাদ। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ ভুল ছিল বলে মনে করেন ইমরান খান।

এ কথা বলতে গিয়ে মুজাহিদ বাহিনীর প্রসঙ্গ টেনে আনেন পাক প্রধানমন্ত্রী।তাঁর কথায়, “আফগানিস্তানের সোভিয়েত বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করতে মুজাহিদ বাহিনী গড়েছিল পাকিস্তান। তাঁদের শেখানো হয়েছিল, বিদেশি শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে। এটা পবিত্র যুদ্ধ-জেহাদ। কিন্তু আমেরিকাকে সমর্থনের ফলে তারাই পাকিস্তানের শত্রু হয়ে যায়। কারণ সেই সময় পাকিস্তান বলেছিল, আমেরিকার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের অর্থ সন্ত্রাসবাদ। এই কথা তারা মানতে চায়নি।

[আরও পড়ুন: তালিবান আছে তালিবানেই! মেয়েদের বাদ দিয়েই খুলছে আফগানিস্তানের স্কুল]

Advertisement
Next